বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর জয়েন্ট চিফস অব স্টাফের চেয়ারম্যান জেনারেল মার্ক মিলার বলেন, আফগানিস্তানের ৪১৯টি জেলাকেন্দ্রের মধ্যে ২০০টির বেশি এখন তালেবানের নিয়ন্ত্রণে।

গত মাসেই মার্ক মিলার বলেছিলেন, আফগানিস্তানের ৮১টি জেলাকেন্দ্র নিয়ন্ত্রণ করছে তালেবান। মাত্র এক মাসের ব্যবধানে তালেবান দেশটির অর্ধেকের বেশি জেলাকেন্দ্র দখল করল।

তবে তালেবান আফগানিস্তানের কোনো প্রাদেশিক রাজধানী দখলে নিতে পারেনি বলে জানান মার্ক মিলার। বিভিন্ন প্রদেশের রাজধানী দখলে নেওয়ার জন্য তালেবান আশপাশে অবস্থান করছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

আফগানিস্তানের ৩৪টি প্রদেশের মধ্যে ২৯টিতে সরকারি ভবন তালেবান ধ্বংস করছে বলে অভিযোগ করেছে আফগান সরকার। তবে সরকারের এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে তালেবান।

তালেবানকে তার আক্রমণাত্মক তৎপরতা বন্ধ করতে আফগানিস্তানে অবস্থিত ৫০টি কূটনীতিক মিশন ও ন্যাটোর প্রতিনিধি আহ্বান জানিয়েছেন।

আফগানিস্তানে মার্কিন সামরিক মিশন আগামী ৩১ আগস্ট শেষ হবে বলে সম্প্রতি দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ঘোষণা দেন। এ প্রসঙ্গে বাইডেনের ভাষ্য, আফগানিস্তানে মার্কিন বাহিনী তার লক্ষ্য অর্জন করেছে। আল-কায়েদার প্রতিষ্ঠাতা ওসামা বিন লাদেনকে হত্যা করা হয়েছে। আল-কায়েদাকে দুর্বল করে দেওয়া হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে আরও হামলা চালানোর বিষয়টিও প্রতিহত করা হয়েছে। তাই আফগানিস্তানে আর মার্কিন সামরিক মিশন চালু রাখার দরকার নেই।

২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে হামলা চালিয়েছিল আল-কায়েদা। সেই হামলার জেরে সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধের নামে যুক্তরাষ্ট্র প্রায় ২০ বছর আগে আফগানিস্তানে সামরিক অভিযানে যায়। অভিযানে সাফল্য এসেছে দাবি করে এখন আফগান যুদ্ধের সমাপ্তি টানছে যুক্তরাষ্ট্র।

গত এপ্রিলের মাঝামাঝি আফগান যুদ্ধ অবসানের জন্য বাইডেন প্রথম আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন। তখন তিনি বলেছিলেন, চলতি বছরের ১১ সেপ্টেম্বরের আগেই শেষ মার্কিন সেনা আফগানিস্তান ছেড়ে আসবেন।

আফগানিস্তান থেকে ইতিমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় সব সেনা প্রত্যাহারের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। কিছু মার্কিন সেনা এখনো আফগানিস্তানে অবস্থান করছেন। তাঁরা কাবুলে মার্কিন দূতাবাস ও বিমানবন্দর সুরক্ষায় নিয়োজিত।

বিদেশি সেনা পুরোপুরি প্রত্যাহার করা হলে তালেবান আবার ক্ষমতা দখল করতে পারে—এমন আশঙ্কার কথা বলছেন বিশ্লেষকেরা।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন