default-image

আফগানিস্তানে তিন নারী গণমাধ্যমকর্মীকে গুলি করে হত্যার দুদিন পরই এক নারী চিকিৎসককে বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় শহর জালালাবাদে এ ঘটনা ঘটে। তবে এখনো কেউ এ হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেনি।

প্রাদেশিক গভর্নর দপ্তরের মুখপাত্র জানান, ওই চিকিৎসক যে যানবাহনে চলাফেরা করতেন, তাতে চুম্বকীয় বোমা লাগিয়ে এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে।

ওই মুখপাত্র এএফপিকে বলেন, তিনি একটি রিকশায় চলাফেরা করতেন।
আফগানিস্তানে সাংবাদিক, ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব, মানবাধিকারকর্মী ও বিচারকদের ওপর হামলা ও হত্যার ঘটনা সম্প্রতি বেড়ে গেছে। এতে অনেকে আত্মগোপন করতে বাধ্য হচ্ছেন। কেউ কেউ দেশ ছেড়েই পালাচ্ছেন।

স্থানীয় সময় গত মঙ্গলবার পূর্বাঞ্চলীয় শহর জালালাবাদে পৃথক দুই হামলার ঘটনায় তিন নারী গণমাধ্যমকর্মী নিহত হন। কাজ শেষে হেঁটে বাসায় ফেরার পথে তাঁদের ওপর গুলি চালান হামলাকারীরা। তাঁরা তিনজনই স্থানীয় এনিকাস টিভিতে ডাবিং বিভাগে কাজ করতেন।

বিজ্ঞাপন

সন্ত্রাসী সংগঠন আইএসের স্থানীয় সহযোগী একটি সংগঠন ওই হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করে বলেছে, ওই তিন সাংবাদিক আফগান সরকারের প্রতি অনুগত গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানে কাজ করছিলেন। তাই তাঁদের হত্যা করা হয়েছে।

আফগানিস্তানে সংঘটিত বিভিন্ন হামলার ঘটনার জন্য আফগান সরকার ও যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা তালেবান জঙ্গিদের দায়ী করছে। তবে তালেবান তা নাকচ করে আসছে।

আফগানিস্তানে সরকার ও তালেবান দুই পক্ষের মধ্যে চলমান শান্তি আলোচনায় গতি ফেরাতে দেশটিতে যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ দূত জালমে খলিলজাদ চলতি সপ্তাহে কাবুল সফরে গেছেন। এরই মধ্যে এসব হামলা চলছে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন