default-image

আফগান যুদ্ধের সময় অস্ট্রেলিয়ার সেনাদের বিরুদ্ধে আফগানিস্তানে ৩৯ জন নিরীহ মানুষকে হত্যার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে গত সপ্তাহে অস্ট্রেলীয় সেনাদের অসদাচরণের বিষয়ে চার বছরের তদন্ত শেষে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে অস্ট্রেলিয়ান ডিফেন্স ফোর্স (এডিএফ)। এবার এডিএফর পক্ষ থেকে বিশেষ বাহিনীর ১০ সেনাকে বরখাস্তের জন্য নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

বিবিসি জানিয়েছে, এ ঘটনায় অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ও শীর্ষ সেনা কমান্ডার ক্ষমা চেয়েছেন।

আফগানিস্তান ওই হত্যাকাণ্ডকে ক্ষমার অযোগ্য বলে উল্লেখ করেছে। তবে দেশটি বিচারের পদক্ষেপ হিসেবে গত সপ্তাহে প্রকাশ করা তদন্ত প্রতিবেদনকে স্বাগত জানিয়েছে।

দুজন সেনাকে ইতিমধ্যে বরখাস্ত করা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যমে তাদের আফগানিস্তানের একটি মাঠে এক আফগান নাগরিকের হত্যাকাণ্ডের সাক্ষী হিসেবে তুলে ধরা হয়।

বিজ্ঞাপন

এর আগে এডিএফের প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৯ জন বর্তমান ও সাবেক সেনার বিরুদ্ধে অবশ্যই পুলিশের তদন্ত করতে হবে। ২০০৯ থেকে ২০১৩ সালের মধ্যে বন্দী, কৃষক ও বেসামরিক লোকজনকে হত্যায় তাঁরা জড়িত ছিলেন।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, তদন্তের নেতৃত্বে ছিলেন মেজর জেনারেল জাস্টিস পল ব্রেরেটন। তিনি ৪০০ জনের বেশি মানুষের সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। তদন্তে দেখা গেছে, ব্লাডিং বা রক্তপাত অনুশীলনের জন্য বন্দীদের গুলি করে মারার জন্য অধীনদের আদেশ দিতেন ঊর্ধ্বতনরা। এ অপরাধ ঢাকতে মৃতদেহের পাশে অস্ত্রসহ অন্যান্য বস্তু রেখে দেওয়া হতো। দুটি ভিন্ন ঘটনায় নির্যাতনের বিষয়টি যুদ্ধাপরাধের মধ্যে পড়ে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও অন্য মিত্রদের সঙ্গে চলমান শান্তিরক্ষার প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে আফগানিস্তানে প্রায় ৪০০ সৈন্য রেখেছে অস্ট্রেলিয়া।

মন্তব্য করুন