আফগানিস্তানের মানুষের কাছে সহায়তা পৌঁছে দিতে বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (ডব্লিউএফপি) ও ইউনিসেফকে এ অর্থ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে সূত্র। অর্থ আসবে বিশ্বব্যাংক পরিচালিত আফগানিস্তান রিকন্সট্রাকশন ট্রাস্ট ফান্ড (এআরটিএফ) থেকে। এর আগে এ তহবিলই স্থগিত করা হয়।

তবে অর্থ ছাড়ের আগে এআরটিএফের ৩১ জন দাতার অনুমতির প্রয়োজন পড়বে। এই দাতাদের বেশির ভাগই মার্কিন। এ লক্ষ্যে আগামীকাল শুক্রবার তাঁরা বৈঠক করবেন বলে জানিয়েছে সূত্রগুলো।

এর আগে গত মঙ্গলবার বৈঠক করেন বিশ্বব্যাংকের কর্মকর্তারা। সেখানে এআরটিএফের ১৫০ কোটি ডলারের তহবিল থেকে ৫০ কোটি ডলার ছাড়ের বিষয়ে আলোচনা হয় বলে রয়টার্সকে জানিয়েছে সূত্র।

দীর্ঘ ২০ বছরের আফগান যুদ্ধের পর চলতি বছরের ৩১ আগস্ট আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনাদের প্রত্যাহার করা হয়। এর আগেই ১৫ আগস্ট রাজধানী কাবুল দখলে নেয় তালেবান। তখন থেকেই চরম আর্থিক সংকটে রয়েছে দেশটি। দেখা দিয়েছে খাবারের সংকট এবং দারিদ্র্য।

আফগানিস্তান বিশ্লেষকেরা মনে করছেন, বিশ্বব্যাংকের এ অর্থ ছাড় দেশটিতে বেশ স্বস্তি এনে দেবে। সবকিছুর মধ্যে প্রশ্ন উঠেছে, আফগানিস্তানে এই অর্থ কীভাবে পৌঁছাবে। কারণ, আফগানিস্তানে আর্থিক লেনদেনে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তবে দেশটিতে মানবিক সহায়তাসংক্রান্ত লেনদেন করা যাবে বলে ব্যাংকগুলোকে নিশ্চয়তা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ মন্ত্রণালয়।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন