বিজ্ঞাপন

দীর্ঘ দুই দশক পরে এসে আফগানিস্তান থেকে বিদেশি সেনা প্রত্যাহার শুরু হয়েছে। আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে দেশটি থেকে যুক্তরাষ্ট্রসহ ন্যাটো জোটের সেনাদের পুরোপুরি সরিয়ে নেওয়ার কথা রয়েছে। সেনা প্রত্যাহার শুরু হওয়ার পর ইতিমধ্যে যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের অনেক এলাকায় নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করেছে তালেবান।

বিদেশি সেনা প্রত্যাহার শুরু ও তালেবানের ক্ষমতার দাপট প্রদর্শনের পর এটাই রাজধানী কাবুলে সংঘটিত প্রথম হামলার ঘটনা। কাবুলের উচ্চ নিরাপত্তাব্যবস্থা–সংবলিত গ্রিন জোন এলাকায় প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের অবস্থান। এই এলাকায় যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশের দূতাবাস রয়েছে।

হামলার সময়কার একটি ভিডিও প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে প্রকাশ করা হয়েছে। তাতে দেখা যায়, প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের বাগানে ঐতিহ্যবাহী আফগান পোশাক ও মাথায় পাগড়ি পরে আশরাফ গনিসহ অন্যরা ঈদের নামাজ পড়ছেন। পাশ থেকে রকেট হামলার আওয়াজ পাওয়া যাচ্ছিল।

আফগান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মিরওয়াইস স্তানিকজাই জানান, প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের পাশে রকেট হামলার ঘটনায় প্রাথমিকভাবে হতাহাতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। প্রেসিডেন্ট গনি ও অন্যরা অক্ষত আছেন। একটি পিকআপ থেকে রকেটগুলো ছোড়া হয়েছিল।

হামলার পর প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি বলেন, তালেবানরা প্রমাণ করেছে শান্তির পথে আসতে তাদের কোনো ইচ্ছা ও পরিকল্পনা নেই।

এর আগে গত বছর প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির অভিষেক অনুষ্ঠানের সময় হামলার ঘটনা ঘটেছিল। ওই হামলার দায় স্বীকার করেছিল ইসলামিক স্টেট (আইএস)। তবে ওই হামলায় কেউ হতাহত হননি।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন