বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত একটা থেকে দুইটার মধ্যে অগ্নিকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটেছে। রাত তিনটার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়। এ সময় অধিকাংশ কয়েদি ঘুমিয়ে ছিলেন। কারাগারের এই ব্লকে যাঁরা থাকতেন, তাঁদের অধিকাংশই মাদকসংক্রান্ত অপরাধে জড়িত বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

এ অগ্নিকাণ্ডের পর জাকার্তা পুলিশের প্রধান ফাদিল ইমরান বলেন, অগ্নিকাণ্ডে ৪১ জন প্রাণ হারিয়েছেন। আটজন গুরুতর আহত হয়েছেন। এ ছাড়া আরও ৭২ জন আহত হয়েছেন। তবে তাঁদের অবস্থা গুরুতর নয়। গুরুতর আহত কয়েদিদের তানজেরাং একটি জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। আর অপেক্ষাকৃত কম আহত কয়েদিদের আরেকটি ক্লিনিকে নেওয়া হয়েছে।

অগ্নিকাণ্ডের কারণ এখনো জানা যায়নি। কর্তৃপক্ষ তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, ইলেকট্রিক ত্রুটির কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। এ প্রসঙ্গে ইমরান বলেন, ‘আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। প্রাথমিক পর্যবেক্ষণে এটা জানা যাচ্ছে, ইলেকট্রিক শর্টসার্কিট থেকে এ দুর্ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।’

তানজেরাংয়ের ওই কারাগারে ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত কয়েদি ছিল। এ কারাগারের ধারণক্ষমতা ৬০০ জন হলেও সেখানে ছিল ২ হাজারের বেশি কয়েদি।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন