default-image

ইন্দোনেশিয়ায় আঘাত হানা শক্তিশালী ভূমিকম্পে মৃত মানুষের সংখ্যা বেড়ে ৪২ হয়েছে। আহত হয়েছে কয়েক শ। দেশটির সুলাওয়েসি দ্বীপে গতকাল শুক্রবার স্থানীয় সময় সকালে ভূমিকম্পটি হয় এবং এর পরপর বেশ কয়েকটি পরাঘাত অনুভূত হয়। খবর বিবিসি ও রয়টার্সের।

ভূমিকম্পটি সাত সেকেন্ডের মতো স্থায়ী ছিল। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৬ দশমিক ২। এটির কেন্দ্রস্থল ছিল সুলাওয়েসি দ্বীপের মাজেনে শহর থেকে ছয় কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে। কেন্দ্রস্থলের গভীরতা ছিল ১০ কিলোমিটার। ভূমিকম্পে দ্বীপটিতে ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ সংঘটিত হয়।

বিভিন্ন ভবনের ধ্বংসস্তূপে আটকা পড়ে থাকা ব্যক্তিদের উদ্ধারে আজ শনিবারও তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। এ অবস্থায় মৃত মানুষের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। শত শত মানুষ এ ভূমিকম্পে আহত হওয়া ছাড়াও বাস্তুচ্যুত হয়েছে কয়েক হাজার।

ভূমিকম্পে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় মামুজু শহরের মিত্রা মানাকারা হাসপাতাল। পাঁচতলা এ হাসপাতাল ভবনের একাংশ মাটির সঙ্গে মিশে গেছে। হাসপাতালটি থেকে প্রায় ৬০ জনকে নিরাপদে বের করে আনা সম্ভব হয়েছে।

ভূমিকম্পের পর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সতর্কবার্তা জারি করে। আরও ভূমিকম্প ও তাতে সুনামির আশঙ্কার কথা জানানো হয় সতর্কবার্তায়। ভূমিকম্প ও এর পরাঘাতে এখন পর্যন্ত দ্বীপটির তিন শতাধিক বাড়িঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দুটি হোটেল। স্থানীয় গভর্নরের কার্যালয় থেকে জানানো হয়, ধ্বংসস্তূপের নিচে অনেক মানুষ আটকে আছে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে ২০১৮ সালে এই সুলাওয়েসি দ্বীপেই শক্তিশালী আরেক ভূমিকম্পে দুই হাজারের বেশি মানুষ যায়।

পশ্চিম সুলাওয়েসি এলাকার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থার প্রধান দারনো মাজিদ জানিয়েছেন, মাজেনে ও এর পার্শ্ববর্তী মামুজু শহরে কমপক্ষে ৪২ জনের মৃত্যুর ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

কর্মকর্তারা জানান, গতকালের ভূমিকম্পে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় মামুজু শহরের মিত্রা মানাকারা হাসপাতাল। পাঁচতলা এ হাসপাতাল ভবনের একাংশ মাটির সঙ্গে মিশে গেছে। হাসপাতালটি থেকে প্রায় ৬০ জনকে নিরাপদে বের করে আনা সম্ভব হয়েছে। স্থানীয় পুলিশ বিভাগের মুখপাত্র সায়েমসু রিদওয়ান বিবিসিকে বলেন, মাত্র ১০ সেকেন্ডে সব লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। ভূমিকম্পের পরপরই হাসপাতালের বিদ্যুৎ–সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো হতাহত ব্যক্তিদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। একই সঙ্গে লোকজনকে শান্ত থাকার ও কর্তৃপক্ষকে উদ্ধার অভিযান জোরদার করার আহ্বান জানান।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন