default-image

ইউক্রেনের বিধ্বস্ত উড়োজাহাজটি ইরানের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে ভূপাতিত হয়েছে বলে মনে করছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। আজ শুক্রবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

জাস্টিন ট্রুডো বলেন, এ বিষয়ে একাধিক সূত্র থেকে তিনি গোয়েন্দা তথ্য পেয়েছেন। এসব তথ্য ইঙ্গিত করছে, ইরানের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে উড়োজাহাজটি ভূপাতিত হয়েছে। এটি উদ্দেশ্যমূলকভাবে করা না-ও হতে পারে।

প্রায় একই সুরে কথা বলেছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

এই পশ্চিমা নেতাদের ধারণা, সম্ভবত ভুল করে উড়োজাহাজটিতে আঘাত করা হয়েছিল।

কানাডা ও যুক্তরাজ্যের নেতারা উড়োজাহাজটি বিধ্বস্তের ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত দাবি করেছেন।

ইরানের ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে উড়োজাহাজ ভূপাতিত হওয়া নিয়ে পশ্চিমা নেতাদের সন্দেহ নাকচ করে দিয়েছে তেহরান।

ইউক্রেন ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইনসের বোয়িং-৭৩৭ উড়োজাহাজটি গত বুধবার ভোরে ইরানের রাজধানী তেহরানের ইমাম খোমিনি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়নের পরপরই বিধ্বস্ত হয়। এতে উড়োজাহাজটির ১৭৬ জন আরোহীর সব আরোহী নিহত হন। ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের উদ্দেশে যাত্রা করে উড়োজাহাজটি।

ইরাকের রাজধানী বাগদাদে গত শুক্রবার ভোরে মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত হন ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডসের কুদস ফোর্সের প্রধান মেজর জেনারেল কাশেম সোলাইমানি। সোলাইমানি হত্যার বদলা নিতে গত বুধবার ভোররাতে ইরাকে দুটি মার্কিন বিমানঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। এই হামলার কয়েক ঘণ্টা পর ইউক্রেনের উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম গতকাল বৃহস্পতিবার খবর বের হয়, উড়োজাহাজটিকে সম্ভবত মার্কিন যুদ্ধবিমান ভাবা হয়েছিল। আর সম্ভবত এই ভুল থেকে উড়োজাহাজটিকে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত করে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও বলেন, তিনি তেমনই সন্দেহ করছেন।

default-image

মার্কিন গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে সিবিএস নিউজের খবরে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দারা একটি রাডারের সংকেত পেয়েছে। এ ছাড়া মার্কিন কৃত্রিম ভূ-উপগ্রহের তথ্য থেকে দুটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার সংকেত পাওয়া গেছে। এসব থেকে মনে হচ্ছে, ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপণযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র দুটি ছোড়া হয় উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হওয়ার আগ মুহূর্তে।

দুর্ঘটনা তদন্তে অংশ নিতে গতকাল ইউক্রেনের প্রায় ৫০ জন সদস্যের একটি বিশেষজ্ঞ দল ইরান গেছে। ইউক্রেন জানিয়েছে, ক্ষেপণাস্ত্র হামলার সঙ্গে উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হওয়ার কোনো যোগসূত্র আছে কি না, তা তদন্ত করতে চায় তারা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0