বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

খুজিস্তান প্রদেশের ভারপ্রাপ্ত গভর্নর ওমিদ সাব্রিপুর ইরনাকে বলেন, বিক্ষোভকারীরা গুলি ছুড়ছিল। এ সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে ওই ব্যক্তি নিহত হন। তবে ইরানের বাইরে থেকে পরিচালিত একটি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, বিক্ষোভ চলাকালে নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরা বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি চালান। এতেই ওই ব্যক্তি নিহত হন।

ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়া নানা ভিডিওতে দেখা গেছে, বিক্ষোভকারীরা টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা বন্ধ করে রেখেছে। নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের হেলমেট পরে তাঁদের নজরদারি করতে দেখা গেছে ।

পানি সংকটের প্রতিবাদে বিক্ষোভ ইরানের বেশ কয়েকটি প্রদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, তাঁরা প্রকৃত পরিস্থিতি অনেকটা কম গুরুত্ব দিয়ে প্রচার করছেন। এর মধ্যেই ঘটনাস্থলে একটি দল পাঠিয়েছে ইরান সরকার।

ইরান সরকার বলছে, অনাবৃষ্টির কারণে এই পানিসংকট দেখা দিয়েছে। পানি সংকটের কারণে ইরানের চাষাবাদে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বন্ধ হয়ে গেছে বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো। ফলে সমস্যা দেখা দিয়েছে বিদ্যুৎ উৎপাদনে। আর তীব্র গরমে অতিরিক্ত শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত যন্ত্র ব্যবহারের ফলে বেড়েছে বিদ্যুতের চাহিদাও। এসবের পেছনে সরকারি অব্যবস্থাপনা এবং দুর্নীতিকে দায়ী করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন