বিজ্ঞাপন

এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে গাজায় রক্তক্ষয়ী হামলা চালাচ্ছে ইসরায়েল। গাজার স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের তথ্যমতে, ইসরায়েলি হামলায় এখন পর্যন্ত অন্তত ২১৭ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে প্রায় ১০০ জন নারী ও শিশু। হামলায় আহত হয়েছেন প্রায় দেড় হাজার ফিলিস্তিনি।

হামলার জবাবে গাজা থেকে ইসরায়েল লক্ষ্য করে রকেট ছুড়ছে হামাস। ইসরায়েলের ভাষ্য, চলমান সংঘাতে ইসরায়েলের পক্ষে ১২ জন নিহত হয়েছেন। তার মধ্যে দুটি শিশু।

দুই পক্ষের সংঘাত বন্ধে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কূটনৈতিক তৎপরতা চলছে। আন্তর্জাতিক মহল যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানাচ্ছে। তবে ইসরায়েল হামলা অব্যাহত রাখার কথা বলছে।

সৌদির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল বিন ফারহান বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘এসব (সংঘাত) আমাদের পুরোপুরি ভুল পথে ঠেলে দিচ্ছে। এর অর্থ হলো, আমরা টেকসই শান্তির দিকে যাত্রাকে আরও কঠিন করে তুলছি।’

সুদান ও আফ্রিকা নিয়ে ফ্রান্সে অনুষ্ঠিত সম্মেলনের ফাঁকে কথা বলেন সৌদির পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাত উগ্রবাদীদের ক্ষমতায়িত করছে বলেও মন্তব্য করেন ফয়সাল বিন ফারহান।

সৌদির পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এটি আমাদের অঞ্চলের সবচেয়ে অসহিষ্ণু কণ্ঠকে শক্তিশালী করছে। সত্যিকারের শান্তি অনুসন্ধানের পথকে কঠিন করে তুলছে।’

ফয়সাল বিন ফারহান বলেন, গুরুত্বসহকারে সব পক্ষকে আলোচনায় উৎসাহিত করার জন্য সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রথমেই সহিংসতা বন্ধ করতে হবে। তারপর চূড়ান্ত নিষ্পত্তির জন্য গুরুত্বসহকারে শান্তি আলোচনায় বসতে হবে।

ফয়সাল বিন ফারহান আরও বলেন, চূড়ান্ত বন্দোবস্তে অবশ্যই পূর্ব জেরুজালেমকে রাজধানী রেখে একটি ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত থাকতে হবে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন