default-image

উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি আরও জোরদার করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন দেশটির নেতা কিম জং–উন। উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা কেসিএনএ আজ বুধবার এই তথ্য জানিয়েছে। উন এমন সময়ে এই প্রতিশ্রুতি দিলেন, যার কয়েক দিন পর যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ক্ষমতা গ্রহণ করবেন।

উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন দল ওয়ার্কার্স পার্টির সম্মেলনের সমাপনী অধিবেশনে কিম জং–উন এ কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের যখন পারমাণবিক যুদ্ধ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা জোরদার করতে হবে, তখন সবচেয়ে শক্তিশালী সামরিক বাহিনী তৈরির ক্ষেত্রেও যা করা দরকার, তা–ই করতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

এই সম্মেলনের শুরু থেকে পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন কিম জং–উন। তিনি বলেছিলেন, উত্তর কোরিয়ার উন্নয়নে সবচেয়ে বড় বাধা যুক্তরাষ্ট্র। এ ছাড়া দেশটির প্রধান শত্রুও যুক্তরাষ্ট্র।

উত্তর কোরিয়ার প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের নীতি প্রসঙ্গে উন বলেন, যিনিই ক্ষমতায় আসুন, তাঁদের নীতির কোনো পরিবর্তন হবে না। তিনি বলেন, উত্তর কোরিয়া ইতিমধ্যে পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন তৈরির পরিকল্পনা শেষ করেছে। অস্ত্রসংক্রান্ত নীতিমালায়ও ব্যাপক পরিবর্তন আনা হবে।

এই পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কিম জং–উনের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়েছেন। এরপর দুই নেতা বৈঠকও করেছেন।

কিন্তু বৈঠক থেকে গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুসারে পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের পদক্ষেপ নেয়নি উত্তর কোরিয়া। নতুন করে পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে কিম জং–উন যা বলছেন, তা নিয়ে খানিকটা সংশয় দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে বিশ্লেষকেরা বলছেন, কিম এসব বলে বাইডেন প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন