দক্ষিণ কোরিয়া ‘শান্তিপূর্ণ একত্রীকরণের’ প্রস্তুতির জন্য আগামী মাসে উচ্চপর্যায়ের আলোচনা করতে উত্তর কোরিয়াকে প্রস্তাব দিয়েছে। তবে কট্টর কমিউনিস্ট দেশটি তাৎক্ষণিকভাবে এই প্রস্তাবের কোনো জবাব দেয়নি। খবর বিবিসির।
দক্ষিণ কোরিয়ার একত্রীকরণমন্ত্রী রায়ো কিল-জিই বলেন, তিনি বিশেষ করে ৬০ বছর আগের কোরিয়া যুদ্ধে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া পরিবারগুলোর একত্রীকরণের ব্যাপারে আলোচনা করার ব্যাপারে আশাবাদী।
এক সংবাদ সম্মেলনে কিল-জিই বলেন, ‘শান্তিপূর্ণ একত্রীকরণের পরিকল্পনা প্রণয়নের জন্য উত্তর ও দক্ষিণের মুখোমুখি বসা উচিত। এই লক্ষে৵ দুই কোরিয়ার পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে আগামী জানুয়ারিতে আলোচনার জন্য আমরা আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব দিচ্ছি।’
এ প্রস্তাবের বিষয়ে উত্তর কোরিয়া ইতিবাচক সাড়া দেবে বলে দক্ষিণ কোরিয়ার এই মন্ত্রী প্রত্যাশা করেন। তিনি সিউল, পিয়ংইয়ং কিংবা দুই কোরিয়ার যেকোনো শহরে আলোচনায় তাঁর সম্মতির কথা জানান। ইতিপূর্বে উত্তর কোরিয়া এই ধরনের একত্রীকরণ পরিকল্পনাকে দক্ষিণ কোরিয়া কর্তৃক দখলের চেষ্টা বলে অভিহিত করেছে।
গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে সর্বশেষ দুই কোরিয়ার মধ্যে উচ্চপর্যায়ের আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ওই আলোচনার মাধ্যমে বিচ্ছিন্ন কিছু পরিবারের একত্রীকরণ ঘটেছিল যা বিরল ঘটনা। এরপর গত অক্টোবরের আলোচনার পরিকল্পনা উত্তর কোরিয়া বাতিল করে। দেশটি তখন অভিযোগ করে, সীমান্তে বেলুনের মাধ্যমে উত্তর কোরিয়াবিরোধী প্রচারণামূলক লিফলেট বিতরণ বন্ধে দক্ষিণ কোরিয়া যথেষ্ট ব্যবস্থা নেয়নি।

বিজ্ঞাপন
এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন