বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

উত্তর কোরিয়ার সেনা কর্মকর্তা মার্শাল পাক জং চোঁর বরাত দিয়ে কেসিএনএ জানায়, দেশটির জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়ানো যেকোনো শক্তিকে মোকাবিলা করতে এ ক্ষেপণাস্ত্রব্যবস্থার নকশা করা হয়েছে। এর পরিসর আরও বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে।
এদিকে এই ক্ষেপণাস্ত্রের কিছু ছবি প্রকাশ করেছে উত্তর কোরিয়া। সেগুলোয় দেখা যায়, দেশটির পার্বত্য অঞ্চলে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রেন থেকে একটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হচ্ছে।

গতকালের ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়ে এক সপ্তাহের কম সময়ের মধ্যে দুবার নতুন ধরনের ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাল উত্তর কোরিয়া। এর আগে গত সোমবারই নতুন একটি দূরপাল্লার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর খবর প্রকাশ করে কেসিএনএ। ওই ক্ষেপণাস্ত্র ১ হাজার ৫০০ কিলোমিটার বা ৯৩০ মাইল দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম বলে জানানো হয়।

এদিকে গতকালই সাবমেরিন থেকে উৎক্ষেপণযোগ্য দুটি ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায় দক্ষিণ কোরিয়া। পারমাণবিক শক্তিধর দেশগুলোর বাইরে একমাত্র দক্ষিণ কোরিয়া ছাড়া আর কারও হাতে এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্রব্যবস্থা আপাতত নেই।

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা না করার বিষয়ে উত্তর কোরিয়ার ওপর জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। দেশটি গত মার্চেও এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায়, যার পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিল।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন