বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

উত্তর কোরিয়ার উত্তরাঞ্চলের ‘সামজিয়ন’ নামের শহরটিকে একটি বড় অর্থনৈতিক কেন্দ্রে রূপান্তরিত করা হচ্ছে। নতুন শহরটিকে ‘সমাজতান্ত্রিক ইউটোপিয়া’ বলে অভিহিত করছেন দেশটির কর্মকর্তারা।

শহরটি নতুন অ্যাপার্টমেন্ট, হোটেল, স্কি রিসোর্টসহ বাণিজ্যিক, সাংস্কৃতিক ও চিকিৎসার সুবিধা দিয়ে সজ্জিত করা হয়েছে।

নতুন শহরটি মাউন্ট পাইকতুরের কাছে অবস্থিত। একে একটি পবিত্র পর্বত হিসেবে গণ্য করে কিম জং-উনের পরিবার। এ পরিবারের শিকড় এখানে বলে দাবি করা হয়।২০১৮ সাল থেকে এখন পর্যন্ত একাধিকবার পর্বতটি পরিদর্শন করেন কিম জং-উন। দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম এটিকে আধুনিক সভ্যতার প্রতীক হিসেবে অভিহিত করে আসছে।

কিম জং-উন ঠিক কবে নতুন শহরটি পরিদর্শন করেছেন, তার সুনির্দিষ্ট কোনো তারিখ উল্লেখ করেনি উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম কেসিএনএ।

তবে এক মাসের বেশি সময় পর এই প্রথম কিম জং-উনকে কোনো প্রকাশ্য কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে দেখা গেল। সবশেষ তিনি দেশটির একটি প্রতিরক্ষা প্রদর্শনীতে ভাষণ দিয়েছিলেন। ২০১৪ সালের পর এই প্রথম তাঁকে এতটা সময় অন্তরালে থাকতে দেখা গেল।

কেসিএনএ জানিয়েছে, নতুন শহর নির্মাণ প্রকল্পের তৃতীয় ও শেষ ধাপের কাজ পরিদর্শন করতে যান কিম জং-উন। চলতি বছরের শেষ নাগাদ এ প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। প্রকল্পের কাজ আগেই শেষ হতো, কিন্তু উত্তর কোরিয়ার ওপর আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞার পাশাপাশি করোনা মহামারির কারণে নির্মাণকাজ বিলম্বিত হয়।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন