বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট একটি সূত্রের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানায়, কাতার এয়ারওয়েজের ওই উড়োজাহাজে ১১৩ জনের মতো যাত্রী ছিলেন। তাঁদের মধ্যে আফগানিস্তানে আটকে পড়া যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ইউক্রেন, জার্মানি ও যুক্তরাজ্যের বাসিন্দারা ছিলেন। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস জানিয়েছেন, ১১৩ যাত্রীর মধ্যে ১০ জন মার্কিন নাগরিক এবং ১১ জন দেশটির স্থায়ী বাসিন্দা রয়েছেন।

এর মধ্য দিয়ে আফগানিস্তানে জীবনযাত্রা আবার স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে বলে আশা প্রকাশ করেছেন কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিশেষ দূত মুতলাক বিন মাজেদ আল-কোয়াহতানি। আজ শুক্রবার আরও একটি উড়োজাহাজ কাবুল ছেড়ে যাবে বলে সংবাদমাধ্যম আল–জাজিরাকে জানান তিনি।

তালেবান আফগানিস্তান দখলের পর থেকেই দেশটির অবস্থা টালমাটাল। আর্থিক সমস্যাসহ নানা সংকটের মধ্যে মুখে পড়েছে আফগানিস্তানের বাসিন্দারা। এর মধ্যেই গত মঙ্গলবার দেশটিতে অন্তর্বর্তীকালীন সরকার ঘোষণা করে তালেবান। তবে নতুন এ সরকারে বিতর্কিত ও সন্ত্রাসবাদের তালিকায় নাম আসা ব্যক্তিরা থাকায় তা পশ্চিমা বিশ্বের সমর্থন পায়নি। সবকিছুর মধ্যেই কাবুল বিমানবন্দর চালু রাখতে তালেবানের পাশে দাঁড়িয়েছে কাতার ও তুরস্ক।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন