default-image

বড় গণজমায়েতের ওপর নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে আজ বৃহস্পতিবার উত্তর প্রদেশের হাথরা শহরে যাওয়ার পথে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় তাঁর বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকেও আটক করা হয়।

সম্প্রতি গণধর্ষণের শিকার হয়ে মৃত্যুবরণ করা এক তরুণীর শোকাহত পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্রকে নিয়ে ওই তরুণীর বাড়িতে যাচ্ছিলেন রাহুল। খবর এনডিটিভির।

মঙ্গলবার মারা যাওয়ার পর ওই নারীর মরদেহ ওই রাতেই উত্তর প্রদেশ পুলিশের তত্ত্বাবধানে সৎকার করা হয়। এ ঘটনায় মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। রাহুল অভিযোগ করেছেন, দিল্লি ও উত্তর প্রদেশের মাঝের মহাসড়ক ধরে যাওয়ার সময় উত্তর প্রদেশ পুলিশ তাঁর গাড়িবহরকে আটকে দেয়। পরে তাঁকে গাড়ি থেকে নামিয়ে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দেয় এবং লাঠিপেটা করে।

বিজ্ঞাপন

এ সময় পুলিশের সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়ের একপর্যায়ে রাহুল প্রশ্ন করেন, তাঁকে কেন গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। এই গ্রেপ্তারের ভিত্তি কী? জবাবে পুলিশ জানায়, সরকারি নির্দেশ অমান্য করায় ১৮৮ ধারায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে উদ্দেশ্য করে রাহুল জানতে চান, ‘এ দেশে কি শুধু মোদি হাঁটাচলা করবেন? একজন সাধারণ মানুষ কী চলতে-ফিরতে পারবেন না? আমাদের গাড়ি আটকে দেওয়ায় আমরা হাঁটতে শুরু করেছিলাম।’

আটক করে নিয়ে যাওয়ার আগে রাহুল গান্ধী মহাসড়কে শত শত কর্মী-সমর্থক নিয়ে স্বল্প সময়ের জন্য বসে পড়ে বিক্ষোভ দেখান এবং সরকারবিরোধী স্লোগান দেন।

বিজ্ঞাপন

এদিকে কংগ্রেস নেতাদের সফরকে সামনে রেখে উত্তর প্রদেশ সরকার করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণ দেখিয়ে সকালে এ রাজ্যে বেশি লোকসমাগমের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে এবং বিভিন্ন স্থানে প্রতিবন্ধকতা বসায়।

মন্তব্য পড়ুন 0