বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রায়ে বিচারক বলেন, অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আনা রাজতন্ত্রকে অস্থিতিশীল করার অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া গেছে। তাঁরা দুজন রাজতন্ত্র তথা রাজপরিবারকে অস্থিতিশীল করতে বাদশাহর বিকল্প হিসেবে প্রিন্স হামজাকে ক্ষমতায় বসানোর পাঁয়তারা করেছিলেন।

রায় ঘোষণা করার আগে বিচারক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মুয়াফাক মাসায়েদ বলেন, এই দুজনের পদক্ষেপ জর্ডানের রাজনৈতিক এবং রাজতন্ত্রের পরিপন্থী। তাঁরা জর্ডানের সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চেয়েছিলেন।

প্রিন্স হামজাকে এই বছরের শুরুর দিকে গৃহবন্দী করা হয়েছিল। গত এপ্রিলে বাদশার প্রতি আনুগত্য স্বীকারের কারণে তাঁকে বিচারের মুখোমুখি হতে হয়নি। তবে মূল অভিযুক্ত হামজাকে বাইরে রেখে এমন রায়ের সমালোচনা করেছেন আইনজীবীরা। অনলাইনে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বার্তা আদান-প্রদানকে মামলার প্রমাণ হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে।

এদিকে জর্ডানের সাবেক অর্থমন্ত্রী আওয়াদাল্লাহকেও রাজনৈতিক পদ্ধতি পরিপন্থী ও জনগণের নিরাপত্তা হুমকির মুখে ফেলার অভিযোগে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তাঁর পরিবারের অভিযোগ, কারাগারে তাঁর ওপর নির্যাতন চালানো হয়েছে। আওয়াদাল্লাহর আইনজীবীরা জানিয়েছেন, তাঁরা রায়ের বিরুদ্ধে আবেদন করবেন।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন