বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দুতার্তে বলেছেন, টিকা না নেওয়া ব্যক্তিদের খুঁজে বের করতে স্থানীয় নেতাদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এমনকি তারা যেন ঘর থেকে বের না হতে পারে, সেটি নিশ্চিত করতেও বলা হয়েছে নেতাদের।

দুতার্তে আরও বলেন, ‘কোনো ব্যক্তি আদেশ অমান্য করে ঘরের বাইরে বের হয়ে চলাফেরা করলে তাকে নিষেধ করা হবে। কিন্তু না শুনলে তাকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য গ্রেপ্তার করবেন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সেই ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে।’

ফিলিপাইনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য বলছে, গত ২৬ সেপ্টেম্বরের পর দেশটিতে সর্বোচ্চ ১৭ হাজার ২২০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তা ছাড়া করোনার নতুন ধরন অমিক্রনের প্রভাবে দেশটিতে সংক্রমণ বেড়েই চলেছে।

গত মঙ্গলবারের চেয়ে বৃহস্পতিবার প্রায় তিন গুণ করোনা শনাক্ত হয়েছে ফিলিপাইনে। করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত দেশটিতে ২০ লাখ ৮৮ হাজার জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এই সময়ে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৫১ হাজার ৭০০ জনের।

গত বছরের শেষ নাগাদ ফিলিপাইনের প্রায় ৫ কোটি মানুষকে পূর্ণ ডোজ টিকা দেওয়া হয়। ১১ কোটি মানুষের দেশটিতে টিকা প্রয়োগের হার ৪৫ শতাংশ। দেশটির বর্তমান আইন অনুযায়ী রাজধানী ম্যানিলায় টিকা না নেওয়া ব্যক্তিরা শুধু অত্যাবশ্যকীয় পণ্য কেনার জন্য ঘরের বাইরে বের হতে পারবে।

এদিকে এ পর্যন্ত ফিলিপাইনে ৪৩ জন দেশি-বিদেশি নাগরিকের শরীরে অমিক্রন শনাক্ত হয়েছে। এমন প্রেক্ষাপটে চলতি সপ্তাহে অমিক্রনের সংক্রমণ রোধে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন