default-image

আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি আগামী ছয় মাসের মধ্যে নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন দেওয়ার প্রস্তাব দেবেন বলে ঠিক করছেন। যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে শান্তিচুক্তির অংশ হিসেবে তিনি এ প্রস্তাব দিতে পারেন বলে জানিয়েছেন দেশটির সরকারি দুই জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা।

তাঁরা বলছেন, আগামী মাসে তুরস্কে আন্তর্জাতিক এক সম্মেলনে গনি তাঁর প্রস্তাব তুলে ধরবেন। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে আশরাফ গনির নির্বাচিত সরকার হটিয়ে তালেবানকে নিয়ে অন্তর্বর্তীকালীন প্রশাসনের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরের যে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে, তা তিনি প্রত্যাখ্যান করতে পারেন বলেই ইঙ্গিত মিলেছে।

তবে গনির শর্ত হচ্ছে, তুরস্কের আন্তর্জাতিক সম্মেলনে মোল্লা ওমরের ছেলে তালেবান নেতা হাইবাতুল্লাহ আখুনজাদা বা মোল্লা ইয়াকুব অংশ নিলে কেবল তিনি সেখানে যাবেন।

বিজ্ঞাপন

প্রায় দুই দশকের যুদ্ধ শেষে গত বছর ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে এ বছরের ১ মের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে সেনা সরানোর প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়।

ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে সরকার ও তালেবানদের মধ্যে লড়াই থামিয়ে শান্তিচুক্তি করার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে। তবে কাতারে আফগানিস্তানের পক্ষ থেকে আলোচনা স্থগিত করা হয়েছে। তালেবানের পক্ষ থেকে কাবুলে পশ্চিমা-সমর্থিত শাসকগোষ্ঠীকে উৎখাতের কথা বলা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠনের প্রস্তাব দেওয়া হলেও গনির সরকার সরে গিয়ে অনির্বাচিত কারও হাতে ক্ষমতা দিতে নারাজ। এর পরিবর্তে বিকল্প প্রস্তাব হিসেবে গনি সরকার আগাম নির্বাচন দেওয়ার কথা বলছে। তবে এর জন্য তালেবানদের গোলাগুলি বন্ধ করতে হবে। এ বিষয়ে অবশ্য যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন