বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ বছর উত্তর কোরিয়া এক ডজনের বেশি অস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে। দেশটির প্রধান পারমাণবিক পরীক্ষাকেন্দ্রে নতুন তৎপরতা নিয়ে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা।
কিমের সঙ্গে তিনবার সাক্ষাৎ করেছেন মুন। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতার মধ্যে আলোচনার ক্ষেত্র তৈরিতে তিনি সহায়তা করেছেন। কিন্তু নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারসহ কিছু বিষয় নিয়ে মতৈক্য না হওয়ায় ২০১৯ সালে কিম ও ট্রাম্পের মধ্যে পরমাণুবিষয়ক আলোচনা কোনো সফলতা ছাড়াই শেষ হয়।

এরপর পিয়ংইয়ং মুনকে হস্তক্ষেপকারী মধ্যস্থতাকারী বলতে শুরু করে। ট্রাম্প ও কিমের আলোচনা ব্যর্থ হওয়ায় পিয়ংইয়ং দুই কোরিয়ার মধ্যে যোগাযোগের জন্য সিউলের অর্থায়নে তৈরি দেড় কোটি ডলারের লিয়াজোঁ অফিস গুঁড়িয়ে দেয়। গত মাসে ২০১৭ সালের পর প্রথম আন্তমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালায় পিয়ংইয়ং।

তবে আজ শুক্রবার পিয়ংইংয়ের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা কেসিএনও বলেছে, চেষ্টা চালালে দুই কোরিয়ার সম্পর্কোন্নয়নের বিষয়ে একমত দুই নেতা। কেসিএনএর প্রতিবেদন অনুযায়ী, কিম জং–উন বলেছেন, মুনের সঙ্গে তাঁর ঐতিহাসিক সম্মেলন দুই দেশের মানুষকে ভবিষ্যৎ সম্পর্ক নিয়ে আশাবাদী করেছে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন