ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র
ইরানের ক্ষেপণাস্ত্ররয়টার্স (ফাইল ছবি)

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তীব্র উত্তেজনার মধ্যে ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডস নতুন নৌ ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রদর্শন করেছে। শক্তিশালী এই ক্ষেপণাস্ত্র রোববার প্রদর্শন করা হয় বলে জানিয়েছে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম।

ইরানের বার্তা সংস্থা তাসনিমের খবরে বলা হয়েছে, ‘জলফাঘর বশির’ নামের ওই ক্ষেপণাস্ত্র ৭০০ কিলোমিটারের বেশি দূরে আঘাত হানতে সক্ষম। ভূমি থেকে ভূমিতে নিক্ষেপণযোগ্য জলফাঘর ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের বিকল্প হিসেবে এই নৌ ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করা হয়েছে।
তেহরান বলেছে, হরমুজ–২–সহ ইরানের যেসব নৌ ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে, তার চেয়ে নতুন এই ক্ষেপণাস্ত্র দ্বিগুণ দূরত্বে আঘাত হানতে সক্ষম। নতুন এই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা করা হয়েছে কি না, তা তাসনিমের খবরে নিশ্চিত করা হয়নি।

বিজ্ঞাপন

তেহরানের জাতীয় মহাকাশ পার্কে ট্রাকে রাখা ‘জলফাঘর বশির’ ক্ষেপণাস্ত্রের ছবি প্রকাশ করেছে তাসনিম। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রেভল্যুশনারি গার্ডসের কমান্ডার মেজর জেনারেল হোসেইন সালামি বলেছেন, ইরানের প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থার বিশদ পরিকল্পনার অংশ হিসেবেই এই প্রদর্শনী।

ইরানের সঙ্গে করা পরমাণু চুক্তি থেকে ২০১৮ সালে বেরিয়ে যায় যুক্তরাষ্ট্র। এরপর থেকে ইরানের বিরুদ্ধে একের পর এক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে চলেছে দেশটি। গত জানুয়ারিতে ইরাকের বাগদাদে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় নিহত হন ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডসের মেজর জেনারেল কাশেম সোলাইমানি। এর জবাবে ইরাকে মার্কিন ঘাঁটি লক্ষ্য করে বেশ কিছু ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। সেই থেকে দেশ দুটির মধ্যে উত্তেজনার পারদ বেড়েই চলেছে।

মন্তব্য পড়ুন 0