default-image

১৬২ আরোহী নিয়ে গতকাল রোববার সিঙ্গাপুরগামী এয়ার এশিয়ার নিখোঁজ বিমানটি সম্ভবত সাগরতলে চলে গিয়েছে। ইন্দোনেশিয়ার ন্যাশনাল সার্চ অ্যান্ড রেসকিউ এজেন্সির প্রধান বামবাং সোইলিস্তয়ো আজ সোমবার এ কথা জানান বলে বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে।
এক সংবাদ সম্মেলনে বামবাং জানান, সমন্বয়কারী ব্যক্তিদের দেওয়া তথ্য ও মূল্যায়নের ভিত্তিতে ধারণা করা হচ্ছে, বিমানটি সাগরে বিধ্বস্ত হতে পারে। সে হিসাবে একটি ধারণা করা যায়, বিমানটি সম্ভবত সাগরতলে চলে গিয়েছে। নিখোঁজ বিমানের অবস্থান বিষয়ে এটিই প্রাথমিক ধারণা এবং তল্লাশির ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে পরবর্তী ধারণা পাওয়া যেতে পারে।
বামবাং জানান, সাগরতলে বিমান খোঁজার মতো প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম ইন্দোনেশিয়ার নেই। তবে প্রয়োজন মনে করলে ইন্দোনেশিয়া অন্য দেশের সহযোগিতা নেবে। তিনি আরও জানান, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও যুক্তরাষ্ট্র ইতিমধ্যে প্রযুক্তিগত সহায়তা দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে। সহায়তা নেওয়ার ব্যাপারে তিনি নিজে ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন।

ইন্দোনেশীয় উড়োজাহাজের খোঁজে তল্লাশিইন্দোনেশিয়ার নিখোঁজ বিমানের খোঁজে আজ সকাল থেকে তল্লাশি শুরু হয়েছে। আকাশ ও নৌপথে শুরু হয়েছে এই অনুসন্ধান। এয়ার এশিয়ার এই উড়োজাহাজ গতকাল ১৬২ জন যাত্রী নিয়ে জাভা সাগরের ওপর দিয়ে যাওয়ার সময় হারিয়ে যায়। নিখোঁজ যাত্রীদের স্বজনেরা আপনজনদের খোঁজ পেতে ব্যাকুল হয়ে অপেক্ষা করছে।

ইন্দোনেশিয়ার ন্যাশনাল সার্চ অ্যান্ড রেসকিউ এজেন্সির ডেপুটি অপারেশনস চিফ তাতাং জয়েনউদ্দিন বলেন, ‘এয়ার এশিয়ার ওই উড়োজাহাজের খোঁজে আজ ভোর ছয়টা (স্থানীয় সময়) থেকে তল্লাশি শুরু করেছি। আমরা পূর্ব বেলিতাং দ্বীপের দিকে যাচ্ছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘আশা করছি, মালয়েশিয়া ও সিঙ্গাপুর জাহাজ এবং বিমান দিয়ে আমাদের তল্লাশি অভিযানে চলবে। শিগগির ওই উড়োজাহাজের খোঁজ পাব বলে আশা করছি।’

এয়ারবাস এ৩২০-২০০ উড়োজাহাজটি ইন্দোনেশিয়ার পূর্ব জাভার সুরাবায়া থেকে সিঙ্গাপুর যাচ্ছিল।

বিজ্ঞাপন
এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন