বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বৈঠক শেষে হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেন, আফগানিস্তান পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের ভূমিকা এবং সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে দেশটির অবস্থানের ওপর সতর্ক নজরদারি রাখতে হবে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, আফগানিস্তানে নানা সংকটে ভূমিকা রেখেছে পাকিস্তান। এ বিষয়গুলোর ওপর নজর রাখবে কোয়াড।

আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাসদস্যদের চূড়ান্ত ধাপে প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তের পর গত মাসের ১৫ তারিখ দেশটির ক্ষমতা নিজেদের দখলে নেয় তালেবান। সে সময়ই বিলুপ্তি ঘটে পশ্চিমাসমর্থিত আফগান সরকারের। তৎকালীন আফগান সরকারের সঙ্গে বেশ সুসম্পর্ক ছিল ভারতের।

তালেবানের সঙ্গে পাকিস্তানের ঘনিষ্ঠতা রয়েছে। ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত তালেবানের প্রথম মেয়াদের সরকারকে হাতে গোনা যে কটি দেশ স্বীকৃতি দেয়, তাদের মধ্যে ছিল পাকিস্তান। সংগঠনটিকে নানাভাবে সহায়তা করার অভিযোগ রয়েছে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের বিরুদ্ধে। তবে তালেবানের বর্তমান অন্তর্বর্তীকালীন সরকারকে এখনো স্বীকৃতি দেয়নি পাকিস্তান।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন