default-image

অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে নিউজিল্যান্ডের ফ্লাইট চালুর পরই অকল্যান্ড বিমানবন্দরের করোনাভাইরাসে সংক্রমিত এক কর্মী শনাক্ত হয়েছেন। তবে ওই কর্মী সংক্রমিত হওয়ার সঙ্গে ভ্রমণের কোনো সম্পর্ক পাওয়া যায়নি। অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে নিউজিল্যান্ডের ফ্লাইটও বাতিল করা হয়নি। বিবিসির আজ মঙ্গলবারের খবরে এ তথ্য জানা গেছে।

এক বছরের বেশি সময় পর প্রথমবারের মতো স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যে ফ্লাইট চলাচল শুরু হয়। দুই দেশের মধ্যে কয়েক হাজার যাত্রী যাতায়াত করেন।

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন বলেছেন, করোনায় সংক্রমিত ওই ব্যক্তি উড়োজাহাজ পরিষ্কারের কাজ করতেন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ওই কর্মীর টিকা দেওয়া ছিল।

বিজ্ঞাপন

আরডার্ন আরও বলেন, বিষয়টি নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনের সঙ্গে তাঁর কথা হয়নি। তবে ওই ব্যক্তি করোনায় সংক্রমিত হওয়ায় দুই দেশের যাতায়াতে কোনো প্রভাব পড়বে বলে তিনি মনে করেন না।

নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্য মানুষের ভ্রমণব্যবস্থা চালু হয়েছে। দুই দেশের মধ্যে চলাচলকারী যাত্রীদের কোনো কোয়ারেন্টিনে থাকার প্রয়োজন নেই।

নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। সীমান্তে কড়া নজরদারি ও লকডাউনের কারণে দুই দেশে সংক্রমণের হার খুব কম।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন