default-image

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহাদা সুগা। স্থানীয় সময় গতকাল বৃহস্পতিবার তিনি বাইডেনকে ফোনে অভিনন্দন জানান। এটি মিত্র দুই দেশের নেতাদের মধ্যে প্রথম টেলিফোন সংলাপ ছিল।

সুগা অবশ্য এর আগে টুইটে বাইডেনকে পরোক্ষ অভিনন্দন জানিয়েছিলেন। প্রথম টেলিফোন সংলাপে সুগা এবং বাইডেন জাপান-যুক্তরাষ্ট্র মৈত্রী জোরদার করে নেওয়ার পাশাপাশি করোনাভাইরাস সংক্রমণ সামাল দেওয়া এবং জলবায়ু চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করতে রাজি হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
default-image

প্রায় ১০ মিনিটের টেলিফোন সংলাপের পর সুগা সাংবাদিকদের বলেছেন, তাঁদের এই প্রথম আলোচনা ছিল খুবই আন্তরিক ও ফলপ্রসূ। নির্বাচনে জেতায় তিনি বাইডেনকে আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়েছেন। অবাধ ও উন্মুক্ত ভারত-প্রশান্ত মহাসাগর অঞ্চল বাস্তবায়নে সহযোগিতা করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

সুগা উত্তর কোরিয়ার জাপানি নাগরিক অপহরণের সমস্যা সমাধানে বাইডেন ও যুক্তরাষ্ট্রের অব্যাহত সমর্থন প্রত্যাশা করেন। সুগা সাংবাদিকদের বলেছেন, বাইডেন তাঁকে জানিয়েছেন জাপান-যুক্তরাষ্ট্র মৈত্রী জোরদার করে নিতে এবং ভারত-প্রশান্ত মহাসাগর অঞ্চলের শান্তি ও নিরাপত্তা বজায় রাখতে ওয়াশিংটনের মিত্রদের সঙ্গে তিনি কাজ করবেন।

টেলিফোন সংলাপে বাইডেন আরও আভাস দিয়েছেন, পূর্ব চীন সাগরের বিতর্কিত সেনকাকু দ্বীপমালা জাপান-মার্কিন নিরাপত্তা চুক্তির আওতাধীন বলে তিনি মনে করেন। জাপানও এমনটাই চাইছে। কারণ চীন এই দ্বীপের মালিকানা দাবি করছে। তাই যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানগত সহযোগিতা জাপানের জন্য প্রয়োজন।

জাপান দ্বীপগুলো নিয়ন্ত্রণ করলেও চীন মালিকানা দাবির পাশাপাশি আশপাশের সমুদ্রে সামরিক উপস্থিতি বাড়িয়ে চলেছে। সংবাদ সম্মেলনে সুগা আরও জানিয়েছেন, জানুয়ারি মাসের ২০ তারিখে বাইডেন দায়িত্ব গ্রহণের পর দ্রুত তিনি ওয়াশিংটন সফরে যাবেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0