বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অবশ্য আগে দেশটির একটি নিরাপত্তা সূত্র জানিয়েছিল, দুটি রকেটই আকাশে থাকা অবস্থায় ভূপাতিত করা হয়। পরে সেগুলো মার্কিন দূতাবাসের কাছে পড়ে।

সবশেষ এই রকেট হামলার দায় এখন পর্যন্ত কেউ স্বীকার করেনি।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ইরাকে মার্কিন সেনা ও স্বার্থ লক্ষ্য করে বেশ কিছু রকেট বা ড্রোন বোমা হামলা চালানো হয়।

এই হামলাগুলোর দায় খুব কমই কেউ স্বীকার করেছে। তবে ইরাকের ইরানসমর্থিত গোষ্ঠীগুলো এই হামলা চালাচ্ছে বলে সন্দেহ করা হয়।

ইরাকে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ২ হাজার ৫০০ সেনা রয়েছে। এ ছাড়া আন্তর্জাতিক জোটের সেনা রয়েছে এক হাজার। এই সেনারা দেশটিতে এখন প্রশিক্ষণ, পরামর্শ ও সহযোগিতার কাজে নিয়োজিত থাকবে বলে জানানো হয়েছে।

২০০৩ সালে ইরাকের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট সাদ্দাম হোসেনকে উৎখাত করতে দেশটিতে আগ্রাসন চালায় যুক্তরাষ্ট্র। সেই আগ্রাসনের পর ২০১১ সালের ১৮ ডিসেম্বর ইরাক থেকে মার্কিন সেনারা বিদায় নেয়। পরে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য ইরাকে সেনা পাঠায় যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন সেনাদের ইরাক ছাড়ার ১০ম বার্ষিকীর সময় গ্রিন জোন এলাকা লক্ষ্য করে রকেট ছোড়া হলো।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন