বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

১৫ আগস্ট কাবুল দখল করে তালেবান। তার তিন সপ্তাহ পর গত মঙ্গলবার আফগানিস্তানের অন্তর্বর্তীকালীন সরকার ঘোষণা করে তারা। এই সরকারের মন্ত্রিসভায় কোনো নারী নেই। এর প্রতিবাদে গতকাল বুধবার আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলসহ একাধিক স্থানে বিচ্ছিন্ন বিক্ষোভ হয়। এসব বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারীদের অধিকাংশই ছিলেন নারী।

গতকাল কাবুলে নারীদের একটি বিক্ষোভ ছত্রভঙ্গ করে দেয় তালেবানের নিরাপত্তা বাহিনী। কাবুলের পাশাপাশি ফাইজাবাদেও বিক্ষোভ ছত্রভঙ্গ করার কথা জানা যায়। আগে দিন মঙ্গলবার কাবুল ও হেরাতে বিক্ষোভ হয়। এই বিক্ষোভ ছত্রভঙ্গ করতে গুলি ছোড়ে তালেবানের নিরাপত্তা বাহিনী। এতে হেরাতে দুজন নিহত হন।

মঙ্গলবার কাবুলে পাকিস্তানবিরোধী বিক্ষোভ হয়। এদিন কাবুলের পাকিস্তান দূতাবাসের বাইরে ৭০ জনের মতো বিক্ষোভকারী জড়ো হয়ে বিক্ষোভ দেখান। বিক্ষোভকারীদের অধিকাংশই ছিলেন নারী। তাঁরা আফগানিস্তানের বিভিন্ন বিষয়ে ইসলামাবাদের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ এনে পাকিস্তানবিরোধী বিক্ষোভ করেন। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দিতে একপর্যায়ে তালেবান সদস্যরা ফাঁকা গুলি ছোড়েন।

কাবুল দখলের পর তালেবানের সরকার গঠনের আগেও একাধিক দিন দেশটির বিভিন্ন স্থানে বিচ্ছিন্ন বিক্ষোভ হয়। এসব বিক্ষোভ ছত্রভঙ্গ করতে তালেবান ছিল মারমুখী।

তালেবানের মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ মঙ্গলবার রাজপথে বিক্ষোভ করার বিষয়ে দেশটির জনসাধারণকে সতর্ক করে দেন।

জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, যতক্ষণ না পর্যন্ত সব সরকারি অফিস খুলছে, যতক্ষণ না পর্যন্ত প্রতিবাদসংক্রান্ত আইনের ব্যাখ্যা দেওয়া হচ্ছে, ততক্ষণ পর্যন্ত কারও প্রতিবাদ বা বিক্ষোভ করা উচিত নয়।

কট্টরপন্থী হিসেবে পরিচিত ব্যক্তিদের নিয়ে আফগানিস্তানের অন্তর্বর্তীকালীন সরকার ঘোষণা করেছে তালেবান। সরকারে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে তালেবানের কয়েকজন বর্ষীয়ান নেতা ও যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞায় থাকা হাক্কানি নেটওয়ার্কের নেতাদের। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন