বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সাড়ে সাত লাখ জনসংখ্যার দেশ ভুটানে গত বছরের মার্চে করোনা পরিস্থিতির কারণে সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়। এখনো দেশটিতে সীমান্ত বন্ধ রয়েছে। তবে সরকার প্রতিটি আবেদন যাচাই–বাছাই করে পর্যটন ভিসার বিষয়টি বিবেচনা করছে।

ফ্রান বাক এর আগেও অবশ্য ভুটানে এসেছেন। ২০১৯ সালের নভেম্বরে তিনি দেশটিতে ভ্রমণ করেছেন। সে সময় ভুটানে এক মাস থাকার পরিকল্পনা ছিল তাঁর। তবে দেশটির সৌন্দর্যে বিমোহিত হয়ে তিনি তিন মাস কাটিয়ে দেন। এবার অবশ্য ফ্রান বাকের ভুটান ভ্রমণে যাওয়াটা খুব সহজ ছিল না। তাঁর ট্রাভেল এজেন্সি সরকারের কাছে বিশেষ অনুরোধ জানায়। সেই অনুরোধ পর্যলোচনা শেষে দেশটির ট্যুরিজম কাউন্সিলসহ অন্যান্য সংস্থা তাঁকে অনুমতি দেয়। কিন্তু শর্ত দেয় তিন সপ্তাহ কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। ফ্রান বাক সে শর্ত মেনে নেন।

ভুটানের ট্রাভেল এজেন্সি মাই ভুটানের প্রতিষ্ঠাতা ম্যাথু দ্যসান্টিস বলেন, ‘বর্তমানে ভুটানে পর্যটন আনুষ্ঠানিকভাবে বন্ধ। তবে যাচাই–বাছাই করে পর্যটক ভিসা দেওয়া হচ্ছে। তবে নিয়ম হচ্ছে যাঁদের টিকা দেওয়া আছে, তাঁদের ১৪ দিন এবং যাঁদের টিকা দেওয়া নেই, তাঁদের ২১ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।’

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন