default-image

মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি ফেরাতে একটি নতুন ফোরাম গঠনের আহ্বান জানিয়েছেন চীন। গতকাল শনিবার চীন সফররত ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফের সঙ্গে বৈঠকের পর এই আহ্বান জানান চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। আন্তর্জাতিক পরিসরে তেহরানকে সমর্থন দেওয়ার বিষয়টিও পুনর্ব্যক্ত করেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, চীন ও ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের ওই বৈঠকের বিষয়ে আজ রোববার একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালে বিশ্বের ছয় ক্ষমতাধর রাষ্ট্রের সঙ্গে ইরানের করা পারমাণবিক চুক্তির প্রতিশ্রুতি বজায় রাখতে ওয়াং ও জাভেদ জারিফ নিজেদের অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার আমলে করা ওই ঐতিহাসিক পারমাণবিক চুক্তিতে ‘ত্রুটিপূর্ণ’ দাবি করে ২০১৮ সালে চুক্তিটি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করে নেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ ছাড়া ইরানের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করে ট্রাম্প প্রশাসন। এরপর থেকে ওই চুক্তির ভবিষ্যৎ নিয়ে এক ধরনের অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। একই সঙ্গে ইরানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক উত্তেজনা বেড়েছে বিষয়টি ঘিরে।

বিজ্ঞাপন

এই অবস্থায় ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জারিফের সঙ্গে শনিবার বৈঠকে করেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং। চীনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর টেংচংয়ে ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় বলে জানিয়েছে বেইজিং।

শুধু যুক্তরাষ্ট্র নয়, মধ্যপ্রাচ্যে সৌদি আরবসহ বেশ কয়েকটি আঞ্চলিক ক্ষমতাধর দেশের সঙ্গে ইরানের সম্পর্ক একেবারে তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। সিরিয়া ও ইয়েমেন সংঘাত এবং ইরাকে ইরানের প্রভাব বিস্তার এই উত্তেজনার বৃদ্ধির অন্যতম কারণ। তাই ‘অন্যায়ভাবে’ ওয়াশিংটন তেহরানের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা দিলেও তার সমর্থন জানিয়ে আসছে সৌদি আরব।

মধ্যপ্রাচ্য নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে ইসরায়েলের সঙ্গে উপসাগরীয় মুসলিম দেশগুলোর কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা ঘিরে। সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন ইতিমধ্যে ইসরায়েলের সঙ্গে স্বাভাবিক কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার চুক্তি করেছে। ফিলিস্তিন এই চুক্তিকে ‘বিশ্বাসঘাতকতা’ বলে প্রত্যাখ্যান করেছে। ইরান ও তুরস্ক বলেছে, এই চুক্তি মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার অন্তরায় হবে।

মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি ফেরাতে নতুন জোট গঠনের বিষয়ে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিবৃতিতে বলেছে, সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সমান অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে একটি আঞ্চলিক বহুপক্ষীয় প্ল্যাটফর্ম গঠনের প্রস্তাব দিচ্ছে চীন। ফোরামটি আলোচনার মাধ্যমে পারস্পরিক সমঝোতা বৃদ্ধি এবং মধ্যপ্রাচ্যের নিরাপত্তা ইস্যুর রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক সমাধানের পথ অনুসন্ধানে কাজ করবে।

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের বিষয়ে টুইট করেছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জারিফ। তিনি বলেন, ওয়াংয়ের সঙ্গে ফলপ্রসূ বৈঠক হয়েছে। তাঁরা যুক্তরাষ্ট্রের একতরফা পদক্ষেপ প্রত্যাখ্যান করেছেন। তাঁরা কৌশলগত মিত্রতা ও করোনাভাইরাস টিকার উন্নয়ন নিয়ে একসঙ্গে কাজ করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0