বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মালয়েশিয়ায় চলছে টিকাদান কার্যক্রম। সরকারি পরিসংখ্যান বলছে, এর মধ্যেই দেশটির ৩ কোটি ২০ লাখ জনসংখ্যার তিন–চতুর্থাংশের বেশি টিকা নিয়েছে। সবকিছু মিলিয়ে দেশটিতে অনেকটাই কমে এসেছে করোনার সংক্রমণ। কয়েক সপ্তাহ ধরে স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে ব্যবসা–বাণিজ্যও।

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিন বলছেন, বিদেশি পর্যটকদের ছাড়া মালয়েশিয়ার পর্যটন খাত ধীরগতিতে আগের রূপে ফিরে আসছে। এ ছাড়া ব্যবসা পুরোদমে শুরু করতে এখনো সময় লাগবে। তিনি এই মুহূর্তে মালয়েশিয়ার অর্থনীতি পুনরুদ্ধার–সংক্রান্ত একটি কাউন্সিলের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

মুহিউদ্দিন আরও বলেন, সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে করোনা পরীক্ষার মতো রীতিনীতিগুলো চালু থাকবে। বিবেচনায় রাখা হবে যেসব দেশ থেকে ভ্রমণকারীরা আসছেন, সেসব দেশের করোনা পরিস্থিতিও। এ ছাড়া নানা বিষয় পর্যালোচনা করে বিদেশিদের প্রবেশের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

এদিকে চলতি বছরে সীমান্ত খুলে দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করলেও সুনির্দিষ্ট করে কোনো দিনক্ষণ জানাননি সাবেক প্রধানমন্ত্রী। এ বিষয়ে স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা সংস্থাগুলো সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বলে জানান তিনি।

এর আগে চলতি সপ্তাহেই মালয়েশিয়া সরকার জানায়, টিকা নেওয়া থাকলে ২৯ নভেম্বর থেকে প্রতিবেশী সিঙ্গাপুরে যাতায়াত করতে কোনো বাধা থাকবে না। এ ক্ষেত্রে কোয়ারেন্টিনে থাকার প্রয়োজনও পড়বে না। ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গেও একই পদ্ধতি চালু করতে রাজি হয়েছে দেশটি।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন