default-image

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এক ব্যক্তির মিথ্যা তথ্যের কারণে পুরো লকডাউনে যেতে হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া রাজ্যকে। বুধবার থেকে শুরু হওয়া এই লকডাউন চলতে পারে ৬ দিন পর্যন্ত। তবে তাঁর মিথ্যা কর্তৃপক্ষ ধরতে পারায় লকডাউনের দিন কমিয়ে আগামীকাল শনিবারই তা শেষ হবে বলে কর্তৃপক্ষ ইঙ্গিত দিয়েছে। বিবিসির প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

পুলিশ ওই ব্যক্তির নাম প্রকাশ করেনি। তবে ওই ব্যক্তি অ্যাডিলেডের উডভিলা পিৎজাবারে একাধিক শিফটে কাজ করতেন বলে জানিয়েছে। সিডনি মর্নিং হেরাল্ডের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই ব্যক্তি এমন এক নিরাপত্তারক্ষীর সংস্পর্শে এসেছিলেন, যিনি একটি কোয়ারেন্টিন হোটেলে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হন।  

ওই ব্যক্তি জানিয়েছিলেন, তিনি ওই দোকানে পিৎজা কিনতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এই তথ্য জানার পর স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে। কারণ তারা মনে করে, এত অল্প সময়ের মধ্যে যদি এই ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়ে থাকেন, তার মানে রাজ্যটিতে এই ভাইরাসের সংক্রমণ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। এরপরই কর্তৃপক্ষ রাজ্যজুড়ে লকডাউনের ঘোষণা দেয়। পাশাপাশি করোনার পরীক্ষা বাড়িয়ে দেয় এবং আক্রান্ত ব্যক্তিরা কাদের সংস্পর্শে এসেছেন, তাঁদের শনাক্ত করতে জোরেশোরে নেমে পড়ে।

বিজ্ঞাপন


দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া রাজ্যে সম্প্রতি ৩৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত এপ্রিলের পর সেখানে এটাই প্রথম কোনো অভ্যন্তরীণ সংক্রমণের ঘটনা। মূলত অভ্যন্তরীণ সংক্রমণের ইতিহাস জানতে গিয়েই ওই ব্যক্তির সন্ধান পায় সেখানকার পুলিশ।

শুক্রবার (২০ নভেম্বর) রাজ্যটিতে নতুন করে তিনজনের কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে।
দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া রাজ্যের প্রিমিয়ার স্টিভেন মার্শাল শুক্রবার বলেন, ‘পিৎজাবারের ওই ব্যক্তির মিথ্যা তথ্যের কারণে আমি বেশ ক্ষুব্ধ। এর পরিণতি কী হয়, তা আমরা সতর্কতার সঙ্গে নজরদারি করব।’

default-image

এই পরিস্থিতে রাজ্যবাসী যদি ওই পিৎজাবারের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে, সে ক্ষেত্রে তাদের (রাজ্য কর্তৃপক্ষ) ভূমিকা কী হবে, সাংবাদিকেরা জানতে চাইলে মার্শাল বলেন, ‘তাঁরা সব বিষয়ই মাথায় রাখছেন। যদি তিনি কন্টাক্ট ট্রেসিং দলকে সত্যটা বলতেন, তাহলে হয়তো আমাদের ৬ দিনের লকডাউনে যেতে হতো না।’


তবে এই মিথ্যা তথ্য দেওয়ার কারণে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে কোনো শাস্তি দেওয়া যাচ্ছে না বলে জানিয়েছেন রাজ্য পুলিশ কমিশনার গ্রান্ট স্টিভেনস। কারণ, ‘মিথ্যা বলার সংশ্লিষ্টতার’ কারণে সেখানে শান্তি দেওয়ার কোনো বিধান নেই।


অস্ট্রেলিয়ায় ২৮ হাজারের কাছাকাছি মানুষের দেহে কোভিড–১৯ শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে মারা গেছেন ৯০০ জনের মতো।

মন্তব্য পড়ুন 0