বিজ্ঞাপন

আজ শনিবার বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার সার্বিয়ান লাইট অ্যাভিয়েশনের (এসআইএলএ) যাত্রীবাহী এন-২৮ উড়োজাহাজটি রাশিয়ার কেদরোভি থেকে তোমস্ক শহরে যাচ্ছিল। এ সময় ১৫ জন যাত্রী ও ৩ জন ক্রু ছিলেন উড়োজাহাজে। হঠাৎ উড়োজাহাজটির সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ কক্ষের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় বলে জানায় তোমস্কের গভর্নর সের্গেই জুভাচকিনের দপ্তর।

পরে রাশিয়ার জরুরি সহায়তাবিষয়ক মন্ত্রণালয় জানায়, নিখোঁজ উড়োজাহাজটির সন্ধান মিলেছে। তোমস্ক বিমানঘাঁটি থেকে ১৫৫ কিলোমিটার দূরে এটি জরুরি অবতরণ করেছে।
উড়োজাহাজটির পাইলটদের একজন ফারুখ খানানোভ। তিনি বলেন, ‘আকাশে থাকা অবস্থায় উড়োজাহাজটির দুটি ইঞ্জিনই বিকল হয়ে গিয়েছিল। আমরা সময় নষ্ট না করে জরুরি অবতরণ করি। সবকিছু ভালোভাবেই হয়েছে। উড়োজাহাজটি ক্ষতিগ্রস্ত হলেও আরোহীদের সবাই অক্ষত আছেন।’

গভর্নর সের্গেই জুভাচকিন বলেন, ৩ ক্রু ও ১৫ যাত্রীর সবাই বেঁচে আছেন। এটা অবিশ্বাস্য, অলৌকিক ঘটনা। পাইলটের দক্ষতার কারণে এটা সম্ভব হয়েছে। উড়োজাহাজটির আরোহীদের তোমস্কে আনা হয়েছে। এখানে তাঁদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হবে।

১০ দিন আগেই রাশিয়ার ফার ইস্ট অঞ্চলের কামচাতকা উপদ্বীপে ২৮ আরোহী নিয়ে একটি যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়। এতে আরোহীদের সবাই নিহত হন। যাত্রীবাহী এন-২৬ উড়োজাহাজটি ২২ জন সাধারণ যাত্রী ও ৬ জন ক্রু নিয়ে কামচাতকার প্রধান শহর পেত্রোপাভলোভস্ক-কামচাতস্কি থেকে উপকূলীয় শহর পালানাতে যাচ্ছিল।

এই দুর্ঘটনায় রাশিয়ার বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্স জানায়, উড়োজাহাজটি খারাপ আবহাওয়ার কারণে বিধ্বস্ত হয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কেননা দুর্ঘটনার সময় ওই এলাকা মেঘাচ্ছন্ন ছিল।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন