বিজ্ঞাপন

তবে ওএফএসির ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ইরানের ওই তিন সাবেক সরকারি কর্মকর্তা হলেন ন্যাশনাল ইরানিয়ান অয়েল কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহমেদ ঘালেবানি, হংকং ইন্টারট্রেড কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফারজাদ বাজারগান ও নাফতিরান ইন্টারট্রেড কোম্পানির বাণিজ্যিক পরিচালক মোহাম্মদ মওইনি। আর কোম্পানি দুটি হলো সি চার্মিং শিপিং কোম্পানি লিমিটেড ও অ্যাওক্সিং শিপ ম্যানেজমেন্ট সাংহাই লিমিটেড।

যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বলেছেন, যে তিনজন ব্যক্তির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে, তাঁরা এখন আর কোনোভাবেই ইরান সরকারের সঙ্গে সম্পর্কিত কোনো কিছুর সঙ্গে সম্পৃক্ত নন। এটা তাঁরা প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছেন। এ জন্য তাঁদের ওপর নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখার আর কোনো কারণ নেই।
ইরানের সঙ্গে পরোক্ষ আলোচনায় ফিরেছে যুক্তরাষ্ট্র। এর মধ্যেই তিন সাবেক সরকারি কর্মকর্তা ও দুটি কোম্পানির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের ঘটনা দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক স্বাভাবিক হওয়ার পথে অগ্রযাত্রা হিসেবে বিবেচনা করছেন বিশ্লেষকেরা। এর মধ্য দিয়ে ইরানের ওপর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সামগ্রিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার প্রস্তুতির ইঙ্গিত মিলছে।

২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রসহ ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে পারমাণবিক চুক্তি করেছিল ইরান। ওই চুক্তিতে বলা হয়েছিল, ইরান পারমাণবিক অস্ত্র অর্জনের স্বপ্ন ত্যাগ করবে। কার্যক্রম গুটিয়ে আনবে। এর বিনিময়ে দেশটির ওপর আরোপিত পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা ধাপে ধাপে তুলে নেওয়া হবে। চুক্তির বাস্তবায়ন শুরু হয়েছিল। তবে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমলে পরিস্থিতি বদলে যায়।

ওই চুক্তি যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থ পরিপন্থী, এমন অভিযোগ তুলে ২০১৮ সালে চুক্তি থেকে নিজ দেশের নাম প্রত্যাহার করে নেন ট্রাম্প। এরপর পরিস্থিতি পুরোপুরি বদলে যায়। ইরান পারমাণবিক কার্যক্রম পুনরায় চালু করে। দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন চুক্তিটি আবারও কার্যকরের আগ্রহ দেখিয়েছেন। এ জন্য অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় ইরানের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর আলোচনা শুরু হয়েছে। তবে ওয়াশিংটন এখনো সরাসরি আলোচনায় যুক্ত হয়নি। আলোচনা এগিয়ে নিতে ইরানের দাবি, আগে নিষেধাজ্ঞা তুলতে হবে। এরপরই চুক্তি কার্যকরের পথ খুলবে। এই সপ্তাহেই ভিয়েনায় ষষ্ঠ দফা আলোচনা শুরু হওয়ার কথা। এ পরিস্থিতিতে ইরানের সাবেক তিন সরকারি কর্মকর্তা ও দুটি কোম্পানির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল ওয়াশিংটন।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন