বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তবে শনিবার ওই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার ঘোষণা দিয়ে দুতার্তে বলেছেন, ‘ফিলিপিনোদের একটি বড় অংশ মনে করে, আমি যোগ্য নই।’ ম্যানিলায় যে মঞ্চ থেকে দুতার্তের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য নিবন্ধনের কথা ছিল, সেখান থেকেই রাজনীতি ছাড়ার এই ঘোষণা দিলেন তিনি।

দুতার্তে বলেছেন, তিনি ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলে তা আইনকে পাশ কাটিয়ে যাওয়া হবে, সংবিধানের চেতনার পরিপন্থী হবে।

অপরাধ দমন ও মাদকবিরোধী লড়াইয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ২০১৬ সালে ক্ষমতায় আসেন দুতার্তে। এর আগে একটি শহরের মেয়র থাকাকালে মাদকের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে শক্তি প্রয়োগ করে আলোচিত ছিলেন তিনি। দুতার্তে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পরের পাঁচ বছরে ফিলিপাইনে মাদকবিরোধী যুদ্ধের নামে ছয় হাজারের বেশি মানুষকে বেশি বিচারবহির্ভূতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

দুতার্তে যখন ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঘোষণা দিয়েছিলেন, তখন গুঞ্জন উঠেছিল যে তিনি রাজনৈতিকভাবে দুর্বল ‘রানিং মেট’ খুঁজছেন। মূলত ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিয়ে পরোক্ষভাবে প্রেসিডেন্টকে পরিচালনা করতে চান।

default-image

জনসমক্ষে রদ্রিগো এটাও বলেছিলেন, তিনি ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে ‘মাদকবিরোধী যুদ্ধের’ নির্দেশদাতা হিসেবে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের বিচার থেকে দায়মুক্তি পাবেন।

রদ্রিগো দুতার্তে যখন রাজনীতি ছাড়ার এই ঘোষণা দিলেন, তখন তাঁর মেয়ে সারা দুতার্তে-কারপিও প্রেসিডেন্ট পদে লড়তে পারেন বলে আলোচনা রয়েছে।

সারা দুতার্তে–কারপিও বর্তমানে ফিলিপাইনের দক্ষিণাঞ্চলীয় দাভাও শহরের মেয়রের দায়িত্বে আছেন। গত মাসে সারা দুতার্তে-কারপিও বলেছেন, তিনি ও তাঁর বাবা মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তাঁদের দুজনের মধ্যে একজন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।

এ বছর যতগুলো জনমত জরিপ হয়েছে, তার সব কটিতেই সারা দুতার্তে-কারপিও এগিয়ে রয়েছেন।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন