default-image

মিসরের ২১ জন কপটিক খ্রিষ্টানকে শিরশ্ছেদের ভিডিওচিত্র প্রচারের পর পাল্টা জবাব হিসেবে লিবিয়ায় জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) আস্তানা লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছে মিসর। আজ সোমবার দেশটির সামরিক বাহিনীর বরাত দিয়ে এএফপির খবরে এ কথা জানানো হয়।
গতকাল রোববার লিবিয়ায় অপহৃত ২১ জন মিসরীয় নাগরিকের শিরশ্ছেদ করার একটি ভিডিওচিত্র প্রচার করে আইএস। এতে লিবিয়ায় অপহৃত মিসরীয়দের শিরশ্ছেদ করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়। জিহাদিদের সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভিডিওটি প্রচার করা হয়।
এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানায় মিসর। এই হত্যাকাণ্ডের সমুচিত জবাব দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি। তিনি করণীয় ঠিক করতে মিসরের নিরাপত্তাপ্রধানদের নিয়ে বৈঠক করেন। দেশটিতে ঘোষণা করা হয়েছে সাত দিনের শোক। বৈঠকের পরই হামলা চালানো হলো। মিসরের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে হামলার ফুটেজ দেখানো হয়েছে।
এক বিবৃতিতে মিসরের সামরিক বাহিনী বলেছে, লিবিয়ার দায়েশ আস্তানাকে লক্ষ্য করে আজ সোমবার সামরিক হামলা চালানো হয়েছে। এটি আইএস জঙ্গিদের সমবেত হওয়া, প্রশিক্ষণ ও অস্ত্র মজুতের স্থান হিসেবে চিহ্নিত।

আইএসের প্রকাশিত ভিডিও ফুটেজে একটি সমুদ্রসৈকতে হাতকড়া পরা ২১ জন জিম্মিকে দেখা যায়। তাঁদের পরনে কমলা রঙের জাম্পস্যুট। তাঁদের প্রত্যেকের সঙ্গে একজন করে মুখোশধারী জঙ্গি। তাঁদের পরনে কালো পোশাক। একপর্যায়ে জিম্মি ব্যক্তিদের হাঁটুগেড়ে বসিয়ে গণহারে শিরশ্ছেদ করে জঙ্গিরা। ভিডিও ফুটেজে দাবি করা হয়েছে, মিসরের ওই ২১ জন খ্রিষ্টানকে শিরশ্ছেদ করেছে ইসলামিক স্টেটের (আইএস) ত্রিপোলি শাখা। লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলির কাছে একটি সমুদ্রসৈকতে তাঁদের শিরশ্ছেদ করা হয়।

এর আগে আইএসের একটি অনলাইন সাময়িকীতে সমসংখ্যক মিসরীয় নাগরিক লিবিয়ায় জিম্মি আছেন বলে দাবি করা হয়েছিল।

আরও পড়ুন

বিজ্ঞাপন
এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন