বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এই উদ্যোগ প্রসঙ্গে বার্তা সংস্থা এএফপিকে সামার বলেন, ‘আমি এ ক্লাবের নাম দিয়েছি কারেজ। কারণ রাস্তায় মেয়েদের সাইকেল চালানো, মানুষ ও ভিড়ের মধ্যে এটি চালানো শেখার জন্য দরকার সাহসের।’

রাহবিনি বলেন, এই সাইক্লিং ক্লাব চালু করা নিয়ে এখন পর্যন্ত তাঁকে তেমন প্রতিক্রিয়ার সম্মুখীন হতে হয়নি। জেদ্দায় নারীদের সাইক্লিং এখন অনেকটাই সাধারণ কাজে পরিণত হয়েছে। সম্প্রতি রাহবিনি ও তাঁর বান্ধবীরা দল বেঁধে রাস্তায় সাইকেল নিয়ে বেরিয়েছিলেন। তিনি জানান, তাঁর ক্লাবে এখন নারী সদস্যের সংখ্যা কয়েক শ ছাড়িয়েছে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নেওয়া বিভিন্ন সংস্কারমূলক কাজের অংশ হিসেবে সৌদি আরবে নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন