বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এদিকে বছরের শুরুতে নতুন ঘোষণা দিয়েছিলেন কিম জং–উন। তিনি বলেছিলেন, নতুন বছরে গুরুত্ব পাবে খাদ্যনিরাপত্তা ও অর্থনীতি। কিন্তু বছর শুরুর এক সপ্তাহ না পেরোতেই ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করলেন কিম জং–উন।

দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, কোরীয় দ্বীপের পূর্বদিকে সাগরে যা নিক্ষেপ করেছে উত্তর কোরিয়া, তা ‘ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র বলে মনে হচ্ছে’। স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ১০ মিনিটে এটি নিক্ষেপ করা হয়।

উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের পর জরুরি বৈঠকে বসেছিল দক্ষিণ কোরিয়ার নিরাপত্তা পরিষদ। এরপর একটি বিবৃতি দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইনের কার্যালয়। এতে বলা হয়েছে, এই অস্ত্র নিক্ষেপের ঘটনায় দক্ষিণ কোরিয়া উদ্বিগ্ন।

জাপান সরকারও এ নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা বলেন, ধারণা করা হচ্ছে, এটি একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র। তিনি বলেন, এটি সত্যি দুঃখজনক যে গত বছর থেকে উত্তর কোরিয়া নিয়মিত ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করছে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন