বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জেসিএসের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘আমরা নিশ্চিত করছি যে ওই ব্যক্তি শনিবার রাত ১০টা ৪০ মিনিটের দিকে সামরিক সীমানারেখা অতিক্রম করে উত্তর কোরিয়ায় চলে গেছেন।’

জেসিএস বলেছে, দক্ষিণ কোরিয়ার যে ব্যক্তি পক্ষত্যাগ করেছেন, তিনি বেঁচে আছেন কি না, সে ব্যাপারে তারা নিশ্চিত হতে পারেনি। তবে ওই ব্যক্তির সুরক্ষার জন্য তারা সামরিক হটলাইনের মাধ্যমে উত্তর কোরিয়ায় একটি নোটিশ পাঠিয়েছে।

সীমান্ত অতিক্রম করার বিষয়টি দক্ষিণ কোরিয়ায় অবৈধ হিসেবে গণ্য হয়।

করোনা মহামারির প্রেক্ষাপটে ২০২০ সালের শুরুর দিকে সীমান্ত বন্ধ করে দেয় উত্তর কোরিয়া। করোনা মোকাবিলায় দেশটি কঠোর বিধিনিষেধ অনুসরণ করে আসছে।

উত্তর কোরিয়ার দাবি, দেশটিতে এখন পর্যন্ত কারও করোনার সংক্রমণ ধরা পড়েনি।

২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে দক্ষিণ কোরিয়ার এক মৎস্য কর্মকর্তা সমুদ্রে নিখোঁজ হন। অনুপ্রবেশের অভিযোগে ওই ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করে উত্তর কোরিয়ার সেনারা।

উত্তর কোরিয়া দাবি করে, করোনা-সংক্রান্ত বিধিনিষেধের কারণে তারা এমনটা করতে বাধ্য হয়েছে।

এই হত্যাকাণ্ড নিয়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া হয়। পরে অবশ্য উত্তর কোরিয়া এই ঘটনায় ক্ষমা চায়।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন