বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ওই ভিডিওতে দেখা যায়, সৌদি আরবের দক্ষিণ–পশ্চিমাঞ্চলের জাজানের প্রধান সড়কে তিন শিল্পী নাচছেন। এই তিনজনই বিদেশি। এই দলের মধ্যে একজন নারীও ছিলেন। ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরেছিলেন তিনি। জাজান উইন্টার ফেস্টিভ্যালে অংশ নিয়েছিলেন তিনি। বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে, ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরোর বার্ষিক উৎসবে তাঁদের যেভাবে দেখা যায়, সেভাবে ওই নারীকে দেখা যায়নি।

এ ঘটনার পর সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে সাম্বা নৃত্যের ভিডিও প্রচার করা হয়েছে। তবে তা ব্লার করে দেওয়া হয়েছে। এ প্রসঙ্গে জাজানের বাসিন্দা মোহাম্মদ আল-বাজাউই বলেন, জাজানের এই অনুষ্ঠান বিনোদনের জন্য। এটা সামাজিক নীতিনৈতিকতা কিংবা ধর্মের বিরুদ্ধে আঘাত নয়।

এদিকে এমন ভিডিও প্রকাশের পর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেকে। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের সাজাও দাবি করেছেন তাঁরা। তবে তাঁরা এ নৃত্যের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। সৌদি আরবের এক টুইটার ব্যবহারকারী আহমাদ আল-সানেহ বলেন, ওই নারী যে পোশাকে নৃত্য পরিবেশন করেছেন, তা অশোভন নয়।

সৌদি আরবে এখনো নারীরা বোরকা পরে রাস্তায় বের হন। ফলে এমন ঘটনায় সেখানে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এরপর জাজানের গভর্নর প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নাসের এ ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন এবং এ ধরনের ঘটনা ঠেকাতে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। তবে কী ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হবে, সে বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হয়নি।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন