বিজ্ঞাপন
default-image

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের প্রকোপ চলছে। মহামারির এ সময়ে এটি তৃতীয় ঈদ। সব দেশেই সরকারের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদ উদ্‌যাপনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। করোনাভাইরাস মহামারির কারণে স্থানীয় বিধিনিষেধ মেনেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুসল্লিরা ঈদের জামাতে অংশ নেন।

মহামারির কারণে এ বছরও সৌদি আরবে ঈদের নামাজ সীমিত পরিসরে আদায় করা হচ্ছে। দুবাইয়ের মুসল্লিরা করোনা বিধিনিষেধ মেনে উন্মুক্ত মাঠে নিজ নিজ জায়নামাজ নিয়ে ঈদের নামাজে অংশ নেন।

default-image

আরব দেশগুলো যখন আজ ঈদের আনন্দ ভাগাভাগির প্রস্তুতি নিচ্ছে, ঠিক তখন মধ্যপ্রাচ্যের ফিলিস্তিন করছে অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই। ফিলিস্তিনে নেই কোনো উৎসবের আমেজ, দোকানপাট বন্ধ এবং রাস্তায় সুনসান নীরবতা। ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি বাহিনীর দফায় দফায় বিমান হামলায় ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে এলাকাটি। আর এর মধ্যেই উদ্‌যাপনহীন রক্তাক্ত এক ঈদ পার করছেন ফিলিস্তিনিরা। এ বছর ঈদের নামাজ পড়েছেন ফিলিস্তিনারা। কিন্তু উৎসব থেকে বিরত থাকবেন ফিলিস্তিনবাসী। ঈদের দিনেও গাজা উপত্যকায় হামলা অব্যাহত রেখেছে ইসরায়েল। ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এ পর্যন্ত ইসরায়েলের হামলায় নিহত হয়েছেন ৬৫ জন। এর মধ্যে ১৬টি শিশু ও ৫ জন নারী। আর আহত হয়েছেন প্রায় ৪০০ জন।

তথ্যসূত্র: রয়টার্স, খালিজ টাইমস, এএফপি ও আল-জাজিরা

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন