default-image

রাশিয়ার তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা ‘স্পুতনিক ভি’ শিগগিরই বাণিজ্যিকভাবে সরবরাহ করা শুরু করবে পাকিস্তানের একটি প্রতিষ্ঠান। আজ রোববার প্রতিষ্ঠানটির এক কর্মকর্তা এ কথা জানান। খবর রয়টার্সের।

বর্তমানে করোনার টিকার সরবরাহ ঘাটতির মুখে রয়েছে পাকিস্তান। এ অবস্থায় চলতি সপ্তাহে রাশিয়ার ওই টিকা বাণিজ্যিক ভিত্তিতে আমদানি ও বিক্রি করতে সম্মত হয়েছে ইসলামাবাদ। যদিও এই টিকার ন্যায্যতা ও উচ্চমূল্য নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে। পাকিস্তানের ওই সিদ্ধান্তের বিপরীতে অধিকাংশ দেশ সরকারি চ্যানেলের মাধ্যমে করোনার টিকা আমদানি ও এটির ব্যবস্থাপনা করছে।

পাকিস্তানের চাঘতাই ল্যাবের পরিচালক ওমর চাঘতাই বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘আমাদের ওই টিকার প্রথম চালান আনতে বলা হয়েছে। আগামী সপ্তাহের মধ্যে এটি আসবে বলে আশা করছি। প্রথম চালানে কয়েক হাজার ডোজ আমদানি করা হবে।’

বিজ্ঞাপন

মূল্য লেখা ছিপি ছাড়া ২২ কোটি জনসংখ্যার একটি স্বল্প আয়ের দেশে এভাবে বেসরকারি পর্যায়ে টিকা বিক্রির অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্তে সমালোচনার মুখে পড়েছে পাকিস্তান। দেশটির সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাফর মির্জা টিকা সংগ্রহ ও বিনা মূল্যে তা জনগণকে দেওয়ার সরকারি প্রচেষ্টার প্রশংসা করলেও বলেছেন, মূল্য নির্ধারণ না করেই বেসরকারি খাতে টিকা বিক্রির ওই সিদ্ধান্ত সমাজে বৈষম্য বাড়াবে। তা-ও এ সিদ্ধান্ত এমন এক সময় নেওয়া হলো, যখন ব্যাপক জনগোষ্ঠীকে টিকা দেওয়ার প্রয়োজন।

পাকিস্তান সরকার চলতি মাসে মিত্রদেশ চীনের কাছ থেকে উপহার হিসেবে পাওয়া পাঁচ লাখ ডোজ সিনোফার্মের টিকা দিয়ে করোনার টিকাদান কর্মসূচি শুরু করেছে। চীন থেকে পাওয়া এসব ডোজের বাইরে টিকা কিনতে ইসলামাবাদ এখন পর্যন্ত কোনো চুক্তিতে পৌঁছাতে পারেনি।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন