default-image

শ্রীলঙ্কার পুলিশপ্রধান পুজুথ জয়াসুন্দরা হামলার ১০ দিন আগেই সতর্কবার্তা দিয়েছিলেন। এএফপি বলছে, ১১ এপ্রিল শীর্ষ কর্মকর্তাদের কাছে ওই সতর্কবার্তা পাঠানো হয়। বিদেশি গোয়েন্দা সংস্থার বরাত দিয়ে ওই সতর্কবার্তায় বলা হয়, উগ্রপন্থী মুসলিম গোষ্ঠী ন্যাশনাল তাওহীদ জামায়াত (এনটিজে) শ্রীলঙ্কার প্রধান গির্জাগুলোয় আত্মঘাতী হামলার পরিকল্পনা করছে। কলম্বোয় ভারতীয় হাইকমিশনেও হামলার পরিকল্পনা রয়েছে।

আজ রোববার শ্রীলঙ্কার তিনটি গির্জা ও তিনটি হোটেলে একের পর এক বিস্ফোরণ ঘটে। আজ খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের অন্যতম প্রধান উৎসব ইস্টার সানডে। এ উপলক্ষে গির্জাগুলোতেও বিশেষ প্রার্থনা চলছিল। এই প্রার্থনার সময়ই হামলা হয়। পুলিশের বরাত দিয়ে এএফপি বলছে, এই হামলায় অন্তত ১৯০ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে চার শতাধিক মানুষ।

default-image

এএফপি কলম্বো প্রতিনিধি জানান, শ্রীলঙ্কার পুলিশপ্রধান পুজুথ জয়াসুন্দরা ১১ এপ্রিল শীর্ষ কর্মকর্তাদের কাছে সতর্কবার্তা পাঠিয়েছিলেন। সেখানে বলা হয়েছিল, ‘একটি বিদেশি গোয়েন্দা সংস্থা প্রতিবেদন পাঠিয়েছে যে এনটিজে দেশের প্রধান গির্জাগুলোয় আত্মঘাতী হামলা করার পরিকল্পনা করছে। কলম্বোয় ভারতীয় হাইকমিশনেও হামলার পরিকল্পনা করা হয়েছে।’ ওই সতর্কবার্তা হাতে পেয়েছে বলে জানিয়েছে এএফপি।

default-image
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন