বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জোট সেনাদের বিবৃতির বরাত দিয়ে সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা এসপিএ জানিয়েছে, মারিব ও আল বায়েদা প্রদেশে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে ১৬টি সাঁজোয়া যান ধ্বংস করা হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ১৩০ জনের বেশি বিদ্রোহীর।

হতাহতের সংখ্যা নিয়ে সৌদি জোট নিয়মিত তথ্য দিলেও এ নিয়ে সচরাচর তেমন মন্তব্য করে না বিদ্রোহীরা। খবর মিলেছে, গত কয়েক সপ্তাহে নিহতের সংখ্যা ৩ হাজার ৭০০ ছাড়িয়েছে। তবে এই হিসাব স্বতন্ত্রভাবে যাচাই করতে পারেনি এএফপি।

মারিবের দখল নিতে গত ফেব্রুয়ারিতে জোর তৎপরতা শুরু করে হুতিরা। এরপর পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হলেও গত সেপ্টেম্বর থেকে তা আবার জোরদার হয়।

২০১৪ সাল থেকে ইয়েমেনে সরকার ও হুতি বিদ্রোহীদের মধ্যে লড়াই চলছে। তখন রাজধানী সানা দখল করে মানসুর হাদি সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করে হুতি বিদ্রোহীরা। পরে ২০১৫ সালের মার্চে হাদি সরকারকে আবারও ক্ষমতায় আনতে দেশটিতে সামরিক হস্তক্ষেপ করে সৌদির নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট।

দেশটিতে কয়েক বছর ধরে চলা গৃহযুদ্ধে হাজার হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বাস্তুচ্যুত হয়েছে কয়েক লাখ মানুষ। ইয়েমেন পরিস্থিতিকে বিশ্বের সবচেয়ে শোচনীয় মানবিক সংকট বলে উল্লেখ করেছে জাতিসংঘ।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন