default-image

ঘটনাবহুল আরেকটি বছর পার করছে এশিয়া। পৃথিবীর বৃহত্তম এই মহাদেশের বেশকিছু নাম এ বছর নানা কারণে খবরের শিরোনাম হয়েছে। তাঁদের মধ্যে বিবিসির বাছাই করা ব্যক্তিত্বদের মধ্য থেকে কয়েকজনকে তুলে ধরা হলো।
জোকো উইদোদো, ইন্দোনেশিয়ার ব্যতিক্রমী নেতা: গত জুলাই মাসে অনুষ্ঠিত ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী হন তিনি। সামরিক বাহিনী বা অভিজাত রাজনীতিক নন, এমন ব্যক্তি হিসেবে তিনিই প্রথম ইন্দোনেশিয়ার নেতা হলেন। পাশাপাশি দুর্নীতিতে জর্জরিত দেশটিতে পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তির রাজনীতিক হিসেবেও উইদোদোর খ্যাতি রয়েছে। ক্ষমতায় বসেই উইদোদো যেসব পদক্ষেপ নিয়েছেন, তার মধ্যে একটি হচ্ছে জ্বালানিতে ভর্তুকি কমানো। উইদোদোর নেতৃত্বের প্রথম পরীক্ষা হিসেবে দেখা হচ্ছে একে।
কিম ইয়ো-জং, উঠতি নেতা: উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন গত সেপ্টেম্বরের দিকে হঠাৎ করেই লোকচক্ষুর আড়ালে চলে যান। এতে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে, তিনি অসুস্থ এবং ক্ষমতার ওপরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেছেন। তখন থেকেই আলোচনা শুরু হয়, কে হচ্ছেন দেশটির পরবর্তী নেতা। অক্টোবরে আবার জনসমক্ষে দেখা যায় জং-উনকে। তবে কয়েক সপ্তাহ পর রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে তাঁর বোন কিম ইয়ো-জংকে প্রথমবারের মতো ক্ষমতাসীন দলের জ্যেষ্ঠ নেতা হিসেবে উল্লেখ করা হয়।
নরেন্দ্র মোদি, আলোড়ন সৃষ্টিকারী: গত মে মাসের লোকসভা নির্বাচনে বিপুলভাবে জয়ী হন বিজেপি নেতা নরেন্দ্র মোদি। গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থাকার সময় সফল অর্থনৈতিক সংস্কারকের তকমা পাওয়া এই হিন্দু জাতীয়তাবাদী নেতা সংকটে পড়া অর্থনীতিকে চাঙা করার প্রতিশ্রুতি দিয়েই প্রধানমন্ত্রী হন। এখন পর্যন্ত অর্থনীতি ঠিক পথেই রয়েছে। তবে অবকাঠামোর নাজুক অবস্থা, ক্রমবর্ধমান ভর্তুকি ও লাগামছাড়া দুর্নীতি ও হিন্দু কট্টরবাদীদের নিয়ন্ত্রণ করার মতো বেশকিছু চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে মোদিকে।
আশরাফ গনি, কাঁধে কঠিন দায়িত্ব: ম্যারাথন দৌড়ের মতো লম্বা একটা নির্বাচন। পদে পদে বিরোধ। এমন এক নির্বাচনের মধ্য দিয়ে গত সেপ্টেম্বরে আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট হন আশরাফ গনি। প্রেসিডেন্ট গনি শান্তি ও স্থিতিশীলতার কঠিন দায়িত্ব এখন কীভাবে সামলাবেন, সেটাই দেখার বিষয়।
এর বাইরেও যে নামগুলো তালিকায় এসেছে, তার মধ্যে আছেন যৌথভাবে নোবেল শান্তি পুরস্কার পাওয়া কৈলাস সত্যার্থী ও মালালা ইউসুফজাই, ভারতের অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন, চীনা ব্যবসা-বাণিজ্যের ‘রাজা’ হিসেবে পরিচিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আলিবাবার প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন