default-image

চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং বলেছেন, চীন ভবিষ্যতে আরও অনেক দেশের সঙ্গে শুল্কমুক্ত বাণিজ্য চুক্তি করবে এবং তাদের উচ্চমানের বেল্ট অ্যান্ড রোড উদ্যোগ এগিয়ে নেবে।

আজ বৃহস্পতিবার এশিয়া-প্যাসিফিক ইকোনমিক কো-অপারেশনের (এপেক) ‘সিইও ডায়ালগস’ আয়োজনে মূল বক্তব্য উপস্থাপনের সময় তিনি এ মন্তব্য করেন। ভিডিও বার্তায় তিনি দেশের অর্থনৈতিক সংস্কার এবং একটি উদ্ভাবন চালিত প্রবৃদ্ধির মডেলের পক্ষে প্রচার চালান।

অনুষ্ঠানে চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং আরও বলেছেন, চীন শুল্ক হ্রাসের পাশাপাশি উচ্চমানের পণ্য ও পরিষেবার আমদানি বাড়াবে।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার ভবিষ্যৎ আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বিষয়ে এপেক নেতাদের একটি ভার্চ্যুয়াল সম্মেলন হবে। তার আগে ‘এপিক সিইও ডায়ালগস’ অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন সি চিন পিং। তিনি বলেন, ‘আমরা আরও শুল্ক ও প্রাতিষ্ঠানিক খরচ কমাব। সমস্ত দেশ থেকে উচ্চমানের পণ্য ও সেবা আমদানি বাড়াব।’

সি তাঁর বক্তব্যে আরও বলেন, ডুয়েল সার্কুলেশন উন্নয়ন মডেলের উচ্চমানের প্রবৃদ্ধি অর্জনের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে চীন, যা প্রযুক্তিগত উদ্ভাবনের মাধ্যমে অর্জন করা যাবে।

সি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মধ্যে নীতিগত সমন্বয় জোরদার করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘বিশ্বায়ন হচ্ছে অপরিবর্তনীয় এবং চীন নিজেকে আলাদা করে ফেলবে না। আমাদের উন্নয়ন কেবল বদ্ধ অভ্যন্তরীণ একক উন্নয়ন নয়। আমরা উন্মুক্ত এবং পারস্পরিকভাবে দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক দ্বৈত প্রচলন নিয়ে এগিয়ে যাব।’

গত মাসে সি চিন পিংসহ দেশটির অন্য নেতারা চীনের পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা প্রণয়ন করেন এবং আগামী ১৫ বছরের লক্ষ্য নির্ধারণ করেন। এর মধ্যে ২০২৫ সালের মধ্যে চীনকে একটি উচ্চ আয়ের দেশে পরিণত করার এবং ২০৩৫ সালের মধ্যে একটি মধ্যম উন্নত দেশে উন্নয়নের লক্ষ্য অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0