default-image

সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রতি চীন সরকারের আচরণ নিয়ে পোপ ফ্রান্সিসের মন্তব্য নাকচ করেছে বেইজিং। আজ বুধবার বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

‘লেট আস ড্রিম: দ্য পাথ টু অ্যা বেটার ফিউচার’ শিরোনামের নতুন বইয়ে পোপ ফ্রান্সিস বলেছেন, তিনি প্রায়ই নির্যাতিত মানুষের কথা ভাবেন। এই নির্যাতিত মানুষের উদাহরণ দিতে গিয়ে তিনি রোহিঙ্গা, দরিদ্র উইঘুর ও ইয়াজিদিদের কথা বলেছেন। বইটি আগামী ১ ডিসেম্বর বের হওয়ার কথা রয়েছে।

পোপ ফ্রান্সিস এই প্রথম চীনের উইঘুরদের নির্যাতিত জনগোষ্ঠী হিসেবে অভিহিত করলেন। এ ব্যাপারে বলার জন্য মানবাধিকারকর্মীরা অনেক দিন ধরেই তাঁর প্রতি আহ্বান জানিয়ে আসছিলেন।

বিজ্ঞাপন

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গতকাল মঙ্গলবার পোপ ফ্রান্সিসের মন্তব্য নাকচ করে। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান দাবি করেন, পোপ ফ্রান্সিস যে মন্তব্য করেছেন, তার কোনো বাস্তব ভিত্তি নেই।

এক ব্রিফিংয়ে ঝাও লিজিয়ান দাবি করে বলেন, চীন সরকার সব সময় জাতিগত সংখ্যালঘুদের আইনগত অধিকার সমানভাবে রক্ষা করে এসেছে।

ঝাও লিজিয়ান আরও দাবি করেন, চীনে সব নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠীর লোকেরা বেঁচে থাকা ও বিকাশ লাভের পূর্ণ অধিকার ও ধর্মীয় বিশ্বাসের স্বাধীনতা পুরো উপভোগ করে।

চীনে সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিমরা নানাভাবে নির্যাতন-নিপীড়নের শিকার হচ্ছে বলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অভিযোগ করে আসছে। তবে চীন এই অভিযোগ অস্বীকার করছে।

মন্তব্য করুন