default-image

চীন আবার একটি পুরো শহরে করোনা পরীক্ষা করছে। চীনা কর্তৃপক্ষের বরাতে আজ সোমবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

চীনা শহরটির নাম কাশগড়। জিনজিয়াং প্রদেশে শহরটি অবস্থিত। শহরের মোট জনসংখ্যা ৪৭ লাখ।

দেশটির কর্মকর্তারা বলেছেন, কাশগড় শহরের সব অধিবাসীর করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। শহরে এখন পর্যন্ত ১৩৮ জন উপসর্গহীন করোনা রোগী পাওয়া গেছে।

বিজ্ঞাপন

শহরটির স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট ছাড়া অধিবাসীদের শহর ত্যাগের অনুমতি দিচ্ছে না কর্তৃপক্ষ।

কর্তৃপক্ষ জানায়, কাশগড়ে প্রথম এক নারীর উপসর্গহীন করোনা শনাক্ত হয়। ওই নারী শহরের উপকণ্ঠের একটি গার্মেন্টস কারখানায় কাজ করেন।

রুটিন পরীক্ষায় ওই নারীর করোনা ধরা পড়ে বলে চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়। চীনের মূল ভূখণ্ডে ১০ দিনের মধ্যে স্থানীয় পর্যায়ে প্রথম ওই নারীর করোনা শনাক্ত হয়। এই ঘটনার পর শহরটিতে গণহারে পরীক্ষা শুরু করে কর্তৃপক্ষ।

শহর কর্তৃপক্ষ জানায়, গত শনিবার তারা এই পরীক্ষা শুরু করে। পরীক্ষায় আরও ১৩৭ জন উপসর্গহীন করোনা রোগী শনাক্ত হন।

শহর কর্তৃপক্ষের ভাষ্য, কাশগড়ে গতকাল রোববার বিকেল নাগাদ ২৮ লাখের বেশি মানুষের করোনা পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। বাকি মানুষের পরীক্ষা দুদিনের মধ্যে শেষ করা হবে।

অক্টোবরে চীনের বন্দরশহর খিংতাওয়ে গণহারে করোনা পরীক্ষা করে চীনা কর্তৃপক্ষ। মাত্র কয়েক দিনে প্রায় ৯৪ লাখ জনসংখ্যার শহরে করোনা পরীক্ষা সম্পন্নের দাবি করে চীন।

খিংতাও শহরটি চীনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত। শহরটির জনসংখ্যা প্রায় ৯৪ লাখ।

একইভাবে গত মে মাসে ১ কোটি ১০ লাখ জনসংখ্যার উহান শহরে করোনা পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়।

চীনের ব্যাপকভিত্তিক ও দ্রুত করোনার নমুনা পরীক্ষার সক্ষমতা রয়েছে।

চীন অনেকাংশে করোনার সংক্রমণ কমিয়ে আনতে সফল হয়েছে। তবে দেশটিতে ছোট আকারে সংক্রমণ দেখা যাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0