default-image

করোনার উৎস অনুসন্ধানে নিযুক্ত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) বিশেষজ্ঞ দল আজ মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমকে ব্রিফ করবে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

চীনের উহান পরিদর্শনসহ দেশটির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রায় এক মাস ধরে বৈঠকের পর ডব্লিউএইচওর বিশেষজ্ঞ দল আজ গণমাধ্যমের মুখোমুখি হচ্ছে।

স্থানীয় সময় আজ বেলা ৩টা ৩০ মিনিটে এই ব্রিফিং হওয়ার কথা রয়েছে। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে। অবশ্য আগে ডব্লিউএইচওর পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, বিকেল চারটায় ব্রিফিংটি হবে।

ডব্লিউএইচও বলেছে, তদন্তে চীনের যেসব বিশেষজ্ঞ যুক্ত ছিলেন, তাঁরাও এই ব্রিফিংয়ে উপস্থিতি থাকবেন।

অনেক দেনদরবার ও নাটকীয়তার পর গত ১৪ জানুয়ারি ডব্লিউএইচওর একটি শক্তিশালী বিশেষজ্ঞ দল চীনে পৌঁছায়। চীনে পৌঁছে বিশেষজ্ঞ দলটি দেশটির নিয়ম অনুসারে দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টিনে অবস্থান করে।

কোয়ারেন্টিন শেষে ডব্লিউএইচওর বিশেষজ্ঞ দলটি করোনার উৎস অনুসন্ধানে গুরুত্বপূর্ণ একাধিক স্থান পরিদর্শন করে। এই স্থানগুলোর মধ্যে অন্যতম ছিল হুয়ানান সিফুড মার্কেট। এখান থেকেই করোনার সংক্রমণ ছড়ায় বলে কথিত রয়েছে।

ডব্লিউএইচওর বিশেষজ্ঞ দলটি উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজিও পরিদর্শন করে। এই ইনস্টিটিউট করোনা নিয়ে গবেষণায় যুক্ত রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ডব্লিউএইচওর বিশেষজ্ঞ দলের সদস্য পিটার দাজাক গত সপ্তাহে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, তাঁদের মিশনের অন্যতম একটি লক্ষ্য হলো করোনার উৎস–সম্পর্কিত তথ্যের ক্ষেত্রে যে ঘাটতি রয়েছে, তা পূরণের জন্য পরবর্তী পদক্ষেপ চিহ্নিত করা।

ডব্লিউএইচও দলের আরেক সদস্য সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডোমিনিক ডোয়ার। তিনি বলেছেন, করোনার উৎস সম্পর্কে পুরোপুরি জানতে-বুঝতে কয়েক বছর লেগে যেতে পারে।

মিশনের নেতা পিটার বেন এমবারেক আগেই সতর্ক করে বলেছিলেন, করোনার উৎস সম্পর্কে তাঁদের পূর্ণধারণা পেতে দীর্ঘ সময় লাগতে পারে।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। পরে তা মহামারি আকারে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে।

করোনায় এখন পর্যন্ত বিশ্বের ১০ কোটি ৭০ লাখের বেশি মানুষ সংক্রমিত হয়েছেন। মারা গেছেন ২৩ লাখের বেশি মানুষ।

উৎপত্তির পর এক বছরের বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত করোনার উৎস সম্পর্কে স্পষ্ট কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে।

করোনার উৎস সন্ধানে একটি বিশেষজ্ঞ দলকে চীনের উহানে পাঠাতে বেশ কয়েক মাস ধরে চেষ্টা চালানোর পর গত বছরের ডিসেম্বরে ডব্লিউএইচও ঘোষণা দেয়, তদন্ত দল ২০২১ সালের জানুয়ারিতে উহান যাবে। চীন অনুমতি না দেওয়ায় জানুয়ারির শুরুর দিকে নির্ধারিত সময়ে সে দেশে যেতে ব্যর্থ হয় তদন্ত দল। এ ঘটনায় হতাশা প্রকাশ করে ডব্লিউএইচও। তদন্ত দলকে যথাসময়ে অনুমতি দেওয়ার ক্ষেত্রে একটা ‘ভুল-বোঝাবুঝি’ হয়েছে বলে দাবি করে চীন। পরে ডব্লিউএইচওর তদন্ত দল উহানে যায়।

চীন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন