বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মেট্রো স্টেশনে ট্রেনের ভেতরে পানি ঢুকে পড়ার কিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে দেখা যায়, ট্রেনের বগির ভেতরে পানি থেকে বের হতে চেষ্টা করছেন যাত্রীরা। একপর্যায়ে বগির ছাদ কেটে তাঁদের বের করতে হয় বলে উল্লেখ করেছে স্থানীয় গণমাধ্যম।

বন্যায় ঝেংঝউ শহরে রাস্তাঘাটের অবস্থাও বেশ খারাপ। পানিতে ডুবে গেছে সড়কগুলো। এর জেরে ভেঙে পড়েছে যোগাযোগব্যবস্থা। শহরটিতে বাস করা পরিবারের সদস্যদের খোঁজ করে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে পোস্ট দিচ্ছেন শহরের বাইরে থাকা অনেকেই।

এদিকে বন্যার ভয়াবহতার জেরে হেনান প্রদেশে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছে কর্তৃপক্ষ। প্রদেশটিতে বৃহস্পতিবারও কমেনি বন্যার তাণ্ডব। পানির চাপে ঝেংঝউ শহর থেকে এক ঘণ্টার দূরত্বের একটি বাঁধ যেকোনো সময় ধসে পড়তে পারে বলে সতর্ক করেছে সেনাবাহিনী। চলতি ঝড়বৃষ্টিতে বাঁধটির আগে থেকেই বেশ ক্ষতি হয়েছিল।

লুয়াং শহরের ইহেতান বাঁধও যেকোনো সময় ধসে পড়তে পারে বলে গতকাল মঙ্গলবার জানায় সেনাবাহিনী। শহরটিতে ৭০ লাখের মতো মানুষ বসবাস করে।

চীনের সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বিপর্যয় মোকাবিলায় হেনান শহরে নদীগুলোর তীরে সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। শহরে নদীর পানি প্রবেশ ঠেকাতে তীরে বালুর বস্তা দিয়ে অস্থায়ী বাঁধ নির্মাণ করছে তারা।

চীনে বর্ষাকালে প্রায় প্রতিবছরই বন্যার দেখা দেয়। তবে কয়েক দশক ধরে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বেড়েছে। দেশটিতে নদীর তীরে ব্যাপক হারে বাঁধ নির্মাণ এর জন্য বহুলাংশে দায়ী বলে উল্লেখ করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

চীন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন