বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

উদ্ধারকর্মীদের বরাত দিয়ে বিমান পরিবহন কর্মকর্তারা বলেছেন, ডিএনএ বিশ্লেষণের মাধ্যমে এখন পর্যন্ত ১২০ জনের পরিচয় শনাক্ত করা গেছে।

কর্মকর্তারা আরও জানান, উড়োজাহাজটির দ্বিতীয় ব্ল্যাক বক্সটির খোঁজ অব্যাহত রয়েছে। এটিকে ফ্লাইট ডেটা রেকর্ডার মনে করা হচ্ছে। গত বুধবার প্রথম ব্ল্যাক বক্সটি পাওয়া যায়। বিশেষজ্ঞদের পরীক্ষা–নিরীক্ষার জন্য এটি বেইজিং পাঠানো হয়েছে। ককপিটের আলাপচারিতা এতে রেকর্ড করা আছে বলে মনে করা হচ্ছে।

জানা গেছে, উঝোউ শহরের নিকটবর্তী প্রত্যন্ত দুর্গম পাহাড়ি বনাঞ্চলে উদ্ধারকাজ চালানো কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। কর্দমাক্ত পাহাড়ি ঢালে উদ্ধারকারীদের কাজ করতে হচ্ছে।

চীনের বেসামরিক বিমান পরিবহন কর্তৃপক্ষের উপ–মহাপরিচালক হু ঝেনজিয়াংকে উদ্ধৃত করে নিউজ সাইট সিনা বলেছে, নিহত ব্যক্তিদের দেহবাশেষ এবং উড়োজাহাজের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

রয়টার্স বলেছে, দুর্ঘটনা তদন্তে মার্কিন ন্যাশনাল ট্রান্সপোর্টেশন সেফটি বোর্ড এবং চীনের বেসামরিক বিমান পরিবহন প্রশাসনকে সহযোগিতা করছে বোয়িংয়ের টেকনিক্যাল টিম। বোয়িং ৭৩৭–৮০০ উড়োজাহাজ নির্মাণ করে থাকে।

দুর্ঘটনার বিষয়টি পূর্ণ তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং। প্রায় তিন দশকের মধ্যে এটা ছিল চীনে সবচেয়ে প্রাণঘাতী উড়োজাহাজ দুর্ঘটনা। এ ঘটনায় গোটা দেশে শোকাবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

চীন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন